সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০২:১৪ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
গবিন্দগঞ্জের উজিরেরপাড়া বাইগুনীতে জমি নিয়ে ত্রিমুখী বিরোধ- ঘরের বেড়া ভাংচুর গাবতলীতে ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত সুখানপুকুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত সোনাতলায় পিঁয়াজ চাষ বৃদ্ধি ও পাটবিজ উৎপাদনের লক্ষ্যে কৃষক প্রশিক্ষণ মোশাররফ হোসেন বগুড়ার সোনাতলায় গাজাগুরু তহসেন আলি সহ ৪ মাদক ব্যবসায়ী আটক নাট্যদিশারি আফসার আহমদ এর স্মরণসভা বগুড়া জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের কমিটি বাতিলের দাবীতে কাহালুতে মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত গাবতলীর জামিরবাড়িয়া পাকা সড়কে স্বেচ্ছাশ্রমে মেরামত গাবতলীর ১১জন বিসিএস ক্যাডারে নিয়োগপ্রাপ্ত ডাক্তারগণকে সংবর্ধণা সাম্প্রদায়িক সহিংসতা বন্ধ ও দোষীদের শাস্তির দাবীতে বগুড়ায় সুজনের মানববন্ধন

খোলা আকাশের নিচে দিনাতিপাত সোনাতলায় ঝড়ে ভেঙ্গে পড়া ভিক্ষুকের ঘর ১০ দিনেও মেরামত হয়নি

খোলা আকাশের নিচে দিনাতিপাত সোনাতলায় ঝড়ে ভেঙ্গে পড়া ভিক্ষুকের ঘর ১০ দিনেও মেরামত হয়নি

বদিউদ-জ্জামান মুকুল, স্টাফ রিপোর্টার: বগুড়ার সোনাতলায় এক অসহায় ভিক্ষুকের মাটির ঘর অবিরাম বর্ষণে ভেঙ্গে পড়লেও তা অর্থের অভাবে গত ১০ দিনেও সংস্কার করতে না পারায় ওই ভিক্ষুক খোলা আকাশের নিচে দিনাতিপাত করছে। এ বিষয়ে তিনি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহায়তা চেয়েছেন।
বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার জোড়গাছা ইউনিয়নের নওদাবগা গ্রামের বাসিন্দা বীরমুক্তিযোদ্ধা মৃত বাবলু আকন্দের মেয়ে বুলি বেওয়া (৬৫)। পেশায় ভিক্ষুক। তার মাথাগোঁজার একমাত্র ঠাঁই মাটির তৈরি ঘরটি গত ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখের প্রবল ঝড়ে ভেঙ্গে পড়ে। ওই ভিক্ষুকের বাড়ির মাত্র আড়াই শতক জায়গা ছাড়া তার কোন ফসলী জমি নেই। তার একমাত্র ছেলে ইনছার গত ১৪/১৫ বছর আগে ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। সংসারে অর্থ উপার্জনের কোন লোক নেই তার। তাই সারাদিন বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় ভিক্ষাবৃত্তি করে যা পান তা দিয়ে কোন রকমে জীবন নির্বাহ করে যাচ্ছেন ভিক্ষুক বুলি বেওয়া। একমাত্র মাথাগোঁজার ঠাই মাটির তৈরি ঘর টুকু ভেঙ্গে পড়ায় সে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। বর্তমানে সে খোলা আকাশের নিচে দিনাতিপাত করছেন।
এ বিষয়ে নওদাবগা গ্রামবাসীর আজিমুল হক, আব্দুল হান্নান কাজী, নজরুল ইসলাম, মাহফুজুল হক শিপলু জানান, তার পিতা মৃত বাবলু আকন্দ স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় মুক্তিযুদ্ধদের পাক হানাদার বাহিনীর গুলিতে নিহত হয়। মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের কন্যা মাথাগোঁজার ঠাই টুকু হারিয়ে এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ জিয়াউর রহমান জানান, এ বিষয়ে কেউ তাকে অবগত করেনি।
এ বিষয়ে স্থানীয় জোড়গাছা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রোস্তম আলী মন্ডল জানান বিষয়টি স্থানীয় লোকজন তাকে অবগত করেন। তিনি এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিবেন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন জানান, বর্তমান সরকার গরীব মানুষের সরকার। আমরা আবেদন পেলে ঘর তৈরি করে দেওয়ার চেষ্টা করবো।

শেয়ারকরুন: