মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৯:১৭ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
কাহালুতে ৬টি মামলায় ৩ হাজার ৪’শ টাকা জরিমানা আদায় করলেন ইউএনও মাছুদুর রহমান মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে গাবতলীর নশিপুর ইউনিয়ন যুবলীগের বৃক্ষরোপন গাবতলীতে জমি বায়নার অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ গাবতলীতে আওয়ামী লীগ নেতা রিবন এর মায়ের মৃত্যুতে দোয়া মাহফিল কাহালুর উত্তরসূরী গ্রুপের উদ্যোগে দেওগ্রাম হাইস্কুলে বৃক্ষরোপনের উদ্বোধন গাবতলী থানা পুলিশ-চুরি ডাকাতি ও মামদকসহ ৫ আসামীকে গ্রেফতার করে জেলে পাঠিয়েছে কাহালুতে ১০ম দিনে ৭টি মামলায় ৩ হাজার ৫’শ টাকা জরিমানা গাবতলীতে বন বিভাগের গাছ চুরি ও গাছ ভাঙ্গার ঘটনায় ৮জনের বিরুদ্ধে মামলা কাহালু উপজেলা তাঁতীলীগের সভাপতি শাহিন ফকিরের রোগমুক্তি কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সোনাতলায় জাসদ নেতা হারুনের উদ্যোগে ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত

গাবতলীতে গামের্ন্টস্ কর্মী ধর্ষন মামলা একমাসেও কোন আসামী গ্রেফতার হয়নি

গাবতলীতে গামের্ন্টস্ কর্মী ধর্ষন মামলা একমাসেও কোন আসামী গ্রেফতার হয়নি

মোঃ আমিনুর ইসলামঃ বগুড়ার গাবতলীতে গামের্ন্টস্ কর্মী ধর্ষন ও সহায়তা মামলার এক মাস অতিবাহিত হলেও কোন আসামী গ্রেফতার হয়নি।

মামলার তদন্ত ঝিমিয়ে পড়ায় উল্টো আসামীপক্ষের লোকজন মামলা তুলেনিতে বাদীনিকে হমকি দিচ্ছ বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষন মামলা করে বাদী ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। মামলা সুত্রে জানাগেছে, গাবতলী উপজেলার দুর্গাহাটা বাজারে অবস্থিত স্বপন গামের্ন্টস্ থেকে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে এক মহিলা গামের্ন্টস্ কর্মীকে হাত পা বেধে ধর্ষন করার অভিযোগে ৪ জনের নামে চলতি ২০২১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারী থানায় একটি মামলা করা হয়।

মামলার বাদীনী ধর্ষিতা এজাহারে বলেছেন, প্রতিদিনের ন্যায় ঘটনার দিন ২৪ ফেব্রুয়ারী পাাঁচকাউনিয়া পাড়া বাড়ি থেকে ৩ কিলো মিটার দুরে সকাল ৮ টায় এসে দুর্গাহাটা বাজারের উত্তর পার্শ্বে স্বপন গামেন্টস্ েকর্মে যোগদান করেন। কাজ শেষে সন্ধ্যা ৬ টায় বাড়ির উদ্দেশ্যে একাই ওই নারী গামের্ন্টস্ কর্মী পায়ে হেটে রওয়ানা হন। সন্ধ্যা পোনে ৭ টায় শিলদহবাড়ি এলাকার জনৈক মোজাম মাষ্টারের বাড়ির নিকট পৌঁছিলে অন্ধকারে মধ্য ওঁৎ পেতে থাকা শিলদহবাড়ি পশ্চিমপাড়া গ্রামের বাবলু মোল্লার ছেলে হারুন (১৯), মজনু প্রাং ছেলে রায়হান প্রাং (১৯), মতি মোল্লার ছেলে সবুজ মোল্লা (২২) ও আব্দুল লতিফ মোল্লার ছেলে তৌহিদ মোল্লা (২৩) মুখ চেপে ধরে স্থানীয় একটি বাঁশঝাড়ে নিয়ে গিয়ে অন্যান্য আসামীদের সহায়তায় ইচ্ছার বিরুদ্ধে ১নং আসামী হারুন জোর পুর্বক ধর্ষন করে। এর পর ধর্ষনের বিষয়টি আসামীরা মোবাইল ফোনে এলাকার জনৈক সাকিলকে জানালে সে ও অন্যরা এসে ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে বাড়ি পৌঁছে দেয়। এঘটনায় স্থানীয়ভাবে আপোষ মিমাংসার চেষ্টা করে না হওয়ায় ধর্ষিতা নিজে বাদী হয়ে, তার চাচীকে সাথে নিয়ে থানায় ২৭ ফেব্রুয়ারী উপরোক্ত আসামীদের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষনের মামলা করে। মামলার পর তদন্ত কর্মকর্তা নিরঞ্জন রায় ধর্ষিতাকে বয়স ও ডাক্তারী পরীক্ষা করায়। তদন্ত কর্মকর্তা বদলি হওয়ায় মামলার তদন্ত ভার অর্পিত হয় এস আই আলহাজ উদ্দীনের উপর। থানায় মামলা রেকর্ড হয়ার এক মাস অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত কোন আসামীকে পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি। মামলার তদন্ত ঝিমিয়ে পড়ায় আসামী ও তার আত্মীয় পক্ষরা উল্টো বাদীনিকে মামলা তুলেনিতে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে বলে বাদীনি ও তার পিতা অভিযোগ করেছেন। এব্যপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গাবতলী মডেল থানার এস আই আলহাজ উদ্দীনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, মামলার পর থেকে আসামীরা পলাতক থাকায় তাদের গ্রেফতার করা যাচ্ছে না।

শেয়ারকরুন: