রবিবার, ২৫ Jul ২০২১, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
বিএনপির দুস্থ নেতাকর্মী, এতিমখানা ও নব মুসলিমকে মাংস প্রদান বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থ্যতা কামনা করে গাবতলীর উজগ্রামে দোয়া মাহফিল ১১০টি পরিবারের মুখে হাসি ফুটালেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মওদুদ আহম্মেদ জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র সাবেক মহাসচিব সাজ্জাদুল কবির মারা গেছেন নেতৃবৃন্দ’র শোক গাবতলীর মহিষাবান ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিএফ’র চাল বিতরণ জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র জেলা সদস্য বাবু’র পিতার মৃত্যুতে নেতৃবৃন্দ’র শোক সোনাতলায় দিনদিন বেরেই চলেছে চোরের উপদ্রব-কৌশলে আবারো ইজিবাইক চুড়ি নন্দীগ্রামে নিজস্ব অর্থায়নে অসহায়দের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন এম পি মোশারফ হোসেন কালাই ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিএফের চাল বিতরণ করলেন ইউ পি চেয়ারম্যান হান্নান

গাবতলীতে চাঁদার টাকা না পেয়ে শিক্ষককে ছুড়িকাঘাতের ঘটনায় মামলা \ গ্রেফতার-১

গাবতলীতে চাঁদার টাকা না পেয়ে শিক্ষককে ছুড়িকাঘাতের ঘটনায় মামলা \ গ্রেফতার-১

সাব্বির হাসান,গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার গাবতলীতে চাঁদার টাকা না পেয়ে শিক্ষককে ছুড়িকাঘাতের ঘটনায় সন্ত্রাসী আল আমিন (২০)কে প্রধান অভিযুক্ত করে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত সোমবার রাতেই আহত শিক্ষকের পিতা হাতিবান্ধা দক্ষিণপাড়া গ্রামের আব্দুল মোত্তালেব ফটু বাদী হয়ে ২জনের নাম উল্লেখ ও ৪/৫জন অজ্ঞাত বলে এই মামলা দায়ের করেন। ঘটনার দিনই স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় মামলার ২নং আসামী জাহাঙ্গীর (২৫)কে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, গাবতলী উপজেলার দুর্গাহাটা উচ্চ বিদ্যালয়ের খন্ডকালীন ইংরেজী শিক্ষক আহসান হাবিবের কাছ থেকে কিছুদিন পূর্বে থেকে মোটা অংকের চাঁদা দাবী করে আসছিল ভান্ডারা গ্রামের ছোকমান সাকিদারের ছেলে সন্ত্রাসী আল আমিনসহ বেশ কয়েকজন। টাকা দিতে অস্বীকার করায় ওই সন্ত্রাসীরা ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছিল। এমতবস্থায় গত সোমবার ১৫ফেব্রæয়ারী বেলা সোয়া ১২টার সময় টিউশন শেষে মোটর সাইকেল নিয়ে বাড়ী ফিরছিল। পথিমধ্যে দূর্গাহাটা ইউপির পূর্বধারে পাকা রাস্তার উপর পৌঁছিলে তার পথরোধ করে আবারও চাঁদার ১লাখ টাকা দাবী করে আল আমিন, জাহাঙ্গীর হোসেনসহ আরও ৪/৫জন। টাকা দিতে অস্বীকার করায় সন্ত্রাসী আল আমিন তাকে ডান পায়ের উড়–তে বার্মিজ চাকু দিয়ে ৩টি স্থানে উপর্যুপরী আঘাত করে। এ সময় আহত শিক্ষক আহসান হাবিবের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে সন্ত্রাসী আল আমিন পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় শিক্ষক আহসানকে গুরুত্বর অবস্থায় উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করে। সেইসাথে স্থানীয় জনতা আল আমিনের সহযোগী জাহাঙ্গীরকে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছে। এ ঘটনায় আহত শিক্ষকের পিতা হাতিবান্ধা দক্ষিণপাড়া গ্রামের আব্দুল মোত্তালেব ফটু বাদী হয়ে সন্ত্রাসী আল আমিন, জাহাঙ্গীর হোসেনের নাম উল্লেখসহ আরও ৪/৫জনকে অজ্ঞাত করে থানায় মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্ত আল আমিন ভান্ডারা গ্রামের ছোকমান আলী সাকিদারের ছেলে এবং গ্রেফতারকৃত জাহাঙ্গীর হোসেন ভান্ডারা গ্রামের আব্দুল হকের ছেলে। এ ব্যাপারে মামলার আইও থানার এসআই শামীমের সঙ্গে বললে তিনি বলেন, মামলার ২নং আসামী জাহাঙ্গীরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রধান অভিযুক্ত আল আমিনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এদিকে যাদেরকে মানুষ গড়ার কারিগর বলা হয় এমন একজন শিক্ষককে চাকু মারা অত্যান্ত লজ্জা ও দুঃখজনক ঘটনা বলে মনে করেন সচেতন মহল। আল আমিনদের এরকম দূঃসাহস সামাজিক মুল্যবোধের অবক্ষয় ছাড়া কিছু নয়। এদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া খুবই প্রয়োজন। নয়তো সমাজের শান্তিপ্রিয় মানুষদের পদে পদে সমস্যার সম্মূখীন হতে হবে।

শেয়ারকরুন: