শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:২৭ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
স্বাধীনতা সম্পর্কে জানতে হলে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী পড়তে হবে : মজিবর রহমান মজনু গাবতলীতে বণ্যপ্রাণী সংরক্ষণ বিষয়ে সচেতনতামূলক সভা গাবতলীতে পৌর বিএনপির দোয়া অনুষ্ঠিত এলাকার উন্নয়ন ও কল্যানমুলক কাজ করতে চশমা মার্কায় ভোট দিন- মাওঃ সাইফুল সোনাতলায় শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ ভোরের দর্পণ পত্রিকার ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গাবতলীতে কেক কর্তন গাবতলীতে আগুনে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ঢেউটিন ও কম্বল বিতরণ সোনাতলা পৌরসভার মেয়র ৩ মাসেও চেয়ারে বসতে পারেনি গাবতলীর সোনারায়ে মোটরসাইকেল মার্কায় ভোট চেয়ে প্রার্থী আজাদুলের গণসংযোগ গাবতলীর নেপালতলী ইউনিয়নে আইয়ুব মাস্টারের গণসংযোগ

গাবতলীতে পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের হামলা ২ জন আহত ১০ বসতবাড়ি ও দোকান ভাংচুর

গাবতলীতে পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের হামলা ২ জন আহত ১০ বসতবাড়ি ও দোকান ভাংচুর

মোঃ আমিনুর ইসলামঃ বগুড়ার গাবতলীতে পৌরসভা নির্বাচনে, পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় ২ ব্যাক্তি গুরুতর আহত ও ১০ বসতবাড়ি ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করায় সেখানে পুলিশ টহল বাড়ানো হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ৩১ জানুয়ারী রবিবার দুপুর দেড়টায় গাবতলী পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের তরফমেরু এলাকায়। এলাবাসী সুত্রে জানাগেছে, ৩০ জানুয়ারী গাবতলী পৌরসভার সাধারন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৭ নং ওয়ার্ড থেকে গোলাম রব্বানী রতন (উটপাখি) প্রতিক ও সোহেল রানা (ব্লাকবোর্ড) প্রতিক নিয়ে ২ জন প্রার্থী কাউন্সিলর নির্বাচন করেন। নির্বাচনে সোহেল রানা পরাজিত হয়। ভোটের পরদিন ৩১ জানুয়ারী রোববার বিজয়ী প্রার্থী গোলাম রব্বানীর কর্মী রাসেল স্থানীয় একটি এলাকায় নারকেলের সোফা কিনতে গেলে পরাজিত প্রার্থী সোহেল রানার কর্মীরা সমর্থকরা তাকে মারপিট করে। এ সংবাদ গোলাম রব্বানীর কর্মী সমর্থকরা জানতে পেরে সবুজ ও রানা ঘটনার স্থলে ছুটে যায়। সেখানে পরাজিত কাউন্সির প্রার্থী সোহেল রানার কর্মী সমর্থকরা তাদেরকে লাঠিসোটাসহ রামদা দিয়ে এলাপাথারী মারপিট করে। এসময় রামদার আঘাতে পিঠে আঘাত প্রাপ্ত হয়ে বিশার ছেলে সবুজ মিয়া ও হাটু ও অন্ডকোষে আঘাত প্রাপ্ত হয় এবং তোতা মিয়ার ছেলে রানা গুরুতর আহত হয়। তাদেরকে প্রথমে গাবতলী উপজেলা সরকারি স্বাস্থ্যকমপ্লেক্র ভর্তি করা হয়। তাদের শারিরিক অবস্থার অনবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য বগুড়া শহিদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। উক্ত ঘটনায় এলাকায় উভয় পক্ষের কাউন্সিলর কর্মী সমর্থকদের মধ্য উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে। এসয় আব্দুর রাজ্জাক, শাহ আলম, রেজাউল করিম, আঃ রহিম, জিলহক, আবু তাহের, নজরুল ইসলাম, ইব্রাহিম আলীসহ ১০টি বসত বাড়িতে হামলাসহ একটি দোকান, সিএনজি ও একটি মটর সাইকেল ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। সংবাদ পেয়ে থানা থেকে পুলিশ গিয়ে ঘটনার স্থান নিয়ন্ত্রন আনে। পুনরায় সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় পুলিশ টহল বাড়ানো হায়েছে বলে গাবতলী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ নুরুজ্জামান জানিয়েছেন। এঘটনায় দোষারোপ করে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে কাউন্সিলর গোলাম রব্বানী রতন ও সোহেল রানা।

শেয়ারকরুন: