শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৪৫ অপরাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
গাবতলীর নেপালতলী ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড’র কমিটি অনুমোদন বগুড়া সদরের নিশিন্দারা ইউনিয়নের দশটিকায় ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত সোনাতলা-গাবতলী সড়কে  ট্রাকের চাপায় পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী মৃত্যু হয়েছে মাননীয় স্পিকার শহীদ জিয়ার লাশ কবরে আছে কি নেই এতদিন পরে তা কেন সংসদে আলোচনা হচ্ছে –এম পি মোশারফ হোসেন প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে গাবতলীতে শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান গাবতলীতে দর্জি শ্রমিকদের মাঝে ত্রাণের চাল বিতরণ সোনাতলায় খামারীদের প্রশিক্ষণে বিভাগীয় পরিচালকের পরিদর্শন কাহালুতে “প্রতিবন্ধী নারীর প্রতি সহিংসতা দূরীকরণে” উপজেলা সমন্বয় কমিটির মাসিক সভা গাবতলীতে নিখোঁজ হওয়ার ৩দিন পর এক মহিলার লাশ উদ্ধার বগুড়ায় ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ বারপুর মধ্যপাড়ার বাপ্পী সহ গ্রেফতারঃ ০৫

গাবতলীতে মারপিট মামলায় আবু হারেজ গ্রেফতার

গাবতলীতে মারপিট মামলায় আবু হারেজ গ্রেফতার

মুহাম্মাদ আবু মুসাঃ বগুড়ার গাবতলীতে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিটের ঘটনায় আবু হারেজ (৩২) নামের এক ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ২৭ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) লাল মিয়া সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে গিয়ে স্থানীয় পেরী হাট এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসলে গতকাল শনিবার আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলা হাজতে পাঠানো হয়। গ্রেফতারকৃত হারেজ উপজেলার মহিষাবান ইউনিয়নের পেরী গ্রামের হায়পোত আলীর ছেলে। জানা গেছে উপজেলা মহিষাবান ইউনিয়নের ধর্মগাছা গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে সিএনজি চালক রফিকুল ইসলাম ফান্টুস (৩৫) কে অপহরণ করার ঘটনায় মামলা দায়ের করে। মামলা টি বগুড়া সিআইডির নিকট তদন্তাধিন রয়েছে। এ মামলাটি তোলার জন্য আবু হারেজসহ অন্যান্য আসামীরা রফিকুলকে হুমকী প্রদর্শন করে। এর এক পর্যায়ে গত ২৫ নভেম্বর সকাল আনুমানিক ১০ টায় স্থানীয় পেড়ির হাট এলাকায় রফিকুল ইসলাম ফান্টুস কে তার পথ রোধ করে ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটা দিয়ে বেদম প্রহার করে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে গুরুত্বর আহতাবস্থায় উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে দেন। এই ঘটনায় রফিকুল ইসলাম ফান্টুসের স্ত্রী মাজেদা বেগম বাদী হয়ে ঘটনার পরের দিন ২৬ নভেম্বর আবু হারেজসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করে। এর প্রেক্ষিতে আবু হারেজ কে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) লাল মিয়া এর সাথে কথা বললে তিনি উপরোক্ত তথ্য নিশ্চিত করে বলেছেন অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতার করতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ারকরুন: