সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৩৪ অপরাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
কাহালুর জামগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত রইছউল আলম মন্ডল রাকাব’র চেয়ারম্যান হিসেবে পুন:নিয়োগ গাবতলীর কদমতলীতে চেয়ারম্যান প্রার্থী গামা’র নির্বাচনী অফিস উদ্ধোধন গাবতলীতে বিদ্যুৎ খুটি থেকে সেচ পাম্পের তিনটি ট্রান্সফর্মার চুরি দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে অবস্থান নেয়ায় গাবতলীতে আ’লীগের ছয় নেতাকে বহিস্কার গাবতলীতে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের উদ্যোগে দোয়া অনুষ্ঠিত গাবতলীতে আগুনে পোড়া বাড়ী পরিদর্শন ও কম্বল বিতরণ করলেন ইউএনও রওনক জাহান গাবতলীতে ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণ সোনাতলায় ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছে আপন দুই সহোদর টিএমএসএস মমইন বিনোদন জগতে আইসক্রিম পার্লারের উদ্বোধন

থানায় জিডি-ওসির দ্রুত পদক্ষেপের আশ্বাস গাবতলীতে চেযারম্যান মিন্টুর বিরুদ্ধে ফেসবুকে মিথ্যা অপপ্রচার

থানায় জিডি-ওসির দ্রুত পদক্ষেপের আশ্বাস গাবতলীতে চেযারম্যান মিন্টুর বিরুদ্ধে ফেসবুকে মিথ্যা অপপ্রচার

মোঃ আমিনুর ইসলামঃ বগুড়ার গাবতলী উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নেপালতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টুর জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে এটি মহল তার বিরুদ্ধে ফেসবুক আইডিসহ বিভিন্নভাবে অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে।

এঘটনায় নেপালতলী ও নবগঠিত সুখানপুকুর ইউনিয়নের সাধারন জনগন বিচারের দাবিতে ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে। চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টুর বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অপপ্রচার কারীদের প্রশাসনের প্রতি শাস্তির দাবি করেছে তারা।

সুখানপুকুর ও নেপালতলী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার সাধারন মানুষের সাথে গোপনে ও প্রকাশ্যে কথা বলে জানাগেছে, দুই বারের সফল চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টু করোনা মহামারীসহ সকল প্রকার আপদ বিপদে, শীত বর্ষা, বিভিন্ন দুর্যোগে এবং সকল প্রকার ধর্মীয় অনুষ্ঠানে সরকারি সাহায্য সহযোগীতা ছাড়াও নিজ তহবিলের অর্থায়নে সাধারন জনগন ও ভোটারদের বাড়ি বাড়ি ছুটে গিয়ে সহযোগীতা করেছেন। তার এই সহযোগীতা এখনো অব্যাহত রয়েছে।

ইউনিয়নের বিভিন্ন উন্নয়ন সামাজিক, বনায়নসহ বিভিন্ন অবদান মুলক কর্মকান্ডের জন্য সরকার তাকে করোনায় বিশেষ অবদানে স্বর্ণ পদক, শেরে-ই-বাংলা স্মৃতি পদক, বঙ্গবীর ওসমানী স্মৃতি পদকসহ স্বাধীনতা সুবর্ন জয়ন্তি পদকে পুরস্কারে ভুষিত করেছেন। চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টুকে সরকার ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে দেয়া হয়েছে বিভিন্ন সনদ পত্র। যা একজন সফল চেয়ারম্যানের ক্ষেত্রে বড় অর্জন ও বড় সম্মানের।

গাবতলী উপজেলা তথা বগুড়া জেলার মধ্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসাবে এতো সম্মান ও পদক কোন চেয়ারম্যান ভুষিত হয়নি। নেপালতলী ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আগামীতে নবগঠিত সুখানপুকুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী এস এম লতিফুল বারী মিন্টুর এসকল সম্মান ও জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি মহল দীর্ঘদিন থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভুয়া আইডি খুলে মিথ্যা ভিত্তিহীর অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টুকে নিয়ে এ সকল মিথ্যা ভিত্তিহীন প্রচারে ফুঁসে উঠেছে সাধারন জনগন ও ভোটার বৃন্দ। বিশেষ করে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সুখানপুকুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টুর একক অধিপত্য, জনপ্রিয়তা, সাধারন ভোটারদের একতা প্রতিপক্ষ প্রতিদ্বন্দিদের মাথা খারাপ করে দিয়েছে। তারা কোন দিসকুল না পেয়ে চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টুকে নিয়ে ব্যাক্তিগত ও তার সম্মানে আঘাত করার চেষ্টা করে যাচ্ছে। ষড়যন্ত্রকারীরা চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টুর অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র করে কোন দিন সফল হবেনা বলেও সাধারন ভোটার জনগন মতামত ব্যক্ত করেছেন।

চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টুকে নিয়ে যত আলোচনা সমালোচনা হবে তার ভোটার ও জনপ্রিয়তা আরো বৃদ্ধি পাবে বলেও সাধারন জনগন মতামত দিয়েছেন।

সুখানপুকুর ইউনিয়নের আগামীতে এস এম লতিফুল বারী মিন্টু চেয়ারম্যান হিসাবে অধিষ্ঠিত হবে বলে সুখানপুকুর এলাকার সাধারন ভোটারগন একতাবদ্ধ হয়েছেন। ষড়যন্ত্রের ধারাবাহিক হিসাবে গত ২৫ মার্চ বাবু সুখানপুকুর ফেসবুক আইডি থেকে চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টুকে নিয়ে বিভিন্ন বাজে মন্তব্য করা হয়েছে। তার ব্যাক্তিগত ও সম্মানের প্রতি আঘাত হানা হয়েছে। যা সত্য নয়। মিথ্যা, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্য প্রনাদিত বলে চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টু এর তীব্র ও কঠোর প্রতিবাদ জানিয়েনে। তিনি বাবু সুখানপুকুর ফেসবুক আইডির বিরুদ্ধে থানায় ২৬ মার্চ শুক্রবার ১২২১ একটি জিডি করেছেন। জিডির সত্যতা স্বীকার করে গাবতলী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিয়া লতিফুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, চেয়ারম্যান এস এম লতিফুল বারী মিন্টুকে নিয়ে ফেসবুক আইডিতে যে সকল অপপ্রচার চালানো হয়েছে তা দ্রুত আইনি পদক্ষেপসহ মিথ্যা অপপ্রচার কারীদের খুঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনা হবে। যাতে করে কেউ মিথ্যাভাবে কারো বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও অ-সম্মান জনক মন্তব্য করতে না পারে।

শেয়ারকরুন: