শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৪৭ অপরাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
গাবতলীর নেপালতলী ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড’র কমিটি অনুমোদন বগুড়া সদরের নিশিন্দারা ইউনিয়নের দশটিকায় ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত সোনাতলা-গাবতলী সড়কে  ট্রাকের চাপায় পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী মৃত্যু হয়েছে মাননীয় স্পিকার শহীদ জিয়ার লাশ কবরে আছে কি নেই এতদিন পরে তা কেন সংসদে আলোচনা হচ্ছে –এম পি মোশারফ হোসেন প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে গাবতলীতে শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান গাবতলীতে দর্জি শ্রমিকদের মাঝে ত্রাণের চাল বিতরণ সোনাতলায় খামারীদের প্রশিক্ষণে বিভাগীয় পরিচালকের পরিদর্শন কাহালুতে “প্রতিবন্ধী নারীর প্রতি সহিংসতা দূরীকরণে” উপজেলা সমন্বয় কমিটির মাসিক সভা গাবতলীতে নিখোঁজ হওয়ার ৩দিন পর এক মহিলার লাশ উদ্ধার বগুড়ায় ডিবির অভিযানে ইয়াবাসহ বারপুর মধ্যপাড়ার বাপ্পী সহ গ্রেফতারঃ ০৫

পূর্ব শত্রুতা ও কবর দেওয়াকে কেন্দ্র করে আহত ৩, খড়ের পালাতে আগুন

পূর্ব শত্রুতা ও কবর দেওয়াকে কেন্দ্র করে আহত ৩, খড়ের পালাতে আগুন

জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ ৭ এপ্রিল বুধবার জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে পূর্ব শত্রæতার জের ও কবর দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পরিবারের তিনজনকে পিটিয়ে আহত করার পর গভীর রাতে খড়ের পালাতে আগুন দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষদের বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার বিকেলে আক্কেলপুর তিলকপুর পশ্চিম শিয়ালাপাড়া গ্রামে মারামরির ঘটনা ও বুধবার দিবাগত রাতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন, জালাল উদ্দিন, বেলাল উদ্দিন, মাসুদ রানা। আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

পুলিশ ও আহতদের পরিবার জানান, মঙ্গলবার সকালে ক্যান্সার আক্রান্ত প্রতিবেশী আচন বেগম মারা যায়। নির্ধারিত কবরস্থানে কবর দেওয়ার কথা গ্রামবাসী ও প্রতিবেশী জালাল, বেলাল, মৃত আচন বেগমের পরিবারকে বলেন। তখন আচন বেগমের পরিবাররা পূর্ব শত্রুতার জেরে শাবল ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাতারি মারধর শুরু করে। তখন তারা দৌড়ে জালালের বাড়ির ভেতর গেলে বাড়ির দরজা ভেঙ্গে আচনের পরিবারের লোকজন বেলালের মাথায় ও চোখে, জালালের পিঠ ও কোমর এবং তার ছেলে মাসুদকেও পিটিয়ে আহত করে।

তাদের উদ্ধার করে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করায়। পরে বুধবার দিবাগত গভীর রাতে বেলালের খড়ের পালা পুড়িয়ে দিয়েছে।

আক্কেলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইদুর রহমান বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। আহতদের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলেই তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য যে, প্রতিপক্ষরা ১৯৯৯ সালের ৫ মে জালাল, বেলাল, মাসুদকে পিটিয়ে আহত করেছিল। সেই ঘটনায় মামলা হয়।

পরে আবারও জালালদের বিভিন্ন মারধর ও হুমকি প্রদান করায় পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে তাদের বিরুদ্ধে ২০২০ সালের ২০ জুলাই জিডিও করেছিল জালাল। তবুও থেমে থাকেনি মৃত আচনের পরিবার।

শেয়ারকরুন: