রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৬:৪০ অপরাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>

প্রকাশ্যে চলছে জুয়া খেলা গাবতলীর দুর্গাহাটায় জুয়াড়ীদের খুঁটির জোর কোথায় ?

প্রকাশ্যে চলছে জুয়া খেলা গাবতলীর দুর্গাহাটায় জুয়াড়ীদের খুঁটির জোর কোথায় ?

মোঃ-আমিনুল ইসলামঃ বগুড়ার গাবতলীর দুর্গাহাটায় জুয়াড়ীদের খুঁটির জোর কোথায় ? জুয়া মামলা থেকে জামিনে এসে প্রকাশ্যে প্রতিদিন আবারো জুয়ার আসর বসিয়েছে। সর্বশান্ত হচ্ছে এলাকার মানুষ। এলাকা থেকে জানাগেছে, দুর্গাহাটা ইউনিয়নের দীর্ঘদিন ধরে শ্বশ্মান ঘাঁটি এলাকাসহ কয়েকটি স্থানে জুয়া চলে আসছিল। পুলিশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করে জুয়া মামলায় আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করে। আসামীরা জামিনে এসে আবারো প্রকাশ্যে দিবালোকে মাঠিয়ানচড়া গ্রামের পশ্চিমপার্শ্বে শ্বশ্মান ঘাঁটি এলাকায় প্রতিদিন জুয়ার আসর বসিয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার একাধিক নারী ও পুরুষ জানায় শ্বশ্মান ঘাঁটি এলাকায় প্রকাশ্যে জুয়ার বিষয়টি প্রশাসনকে জানানো হলেও তারা কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। জুয়ার কারনে এলাকায় প্রতিদিন ছোট বড় চুরি, ছিনতাই, অপরাধ, টাকা নাপেয়ে শাড়ী, গহনা না পেয়ে জুয়াড়ী স্বামীর সাথে স্ত্রীর ঝগড়া বিাবাদ লেগেই থাকে। এলাকার কিছু এনজিও ঐ সকল জুয়াড়ীদের প্রতিদিন চড়াসুদে টাকা দিয়ে এসকল জুয়ার কর্মকান্ড জাগিয়ে রেখেছে। এলাকার লোকজন আরো জানায়, দুলাল, রফিকুল, জিয়া নামের কয়েকজন লোক জুয়া আসর দেখভাল করছে। এব্যাপারে দুর্গাহাটা ইউনিয়নের ট্যাগ অফিসার গাবতলী মডেল থানার এস আই শামীম হোসেনের সাথে কথা বললে তিনি জানান, শ্বশ্মান ঘাঁটি এলাকা স্থানীয় একটি নদীর অপরপ্রান্তে হওয়ায় পুলিশ পৌঁছার আগেই জুয়াড়ীরা পালিয়ে যায়। একারনে তাদের ধরা সম্ভব হয়না। গাবতলী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ নুরুজ্জামান’র সাথে যোগাযোগ করা হলে জানান, দুর্গাহাটা এলাকা থেকে জুয়াড়ীদের ধরে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছিল। জামিনে এসে তারা যদি আবারো জুয়ার আসর বসায়, তা হলে তাদেরকে আবারো গ্রেফতার করা হবে। গাবতলী উপজেলায় কোন জুয়া খেলা, মাদক সেবন ও বিক্রি করতে দেয়া হবেনা।

শেয়ারকরুন: