শনিবার, ২৪ Jul ২০২১, ০৮:১৭ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
বিএনপির দুস্থ নেতাকর্মী, এতিমখানা ও নব মুসলিমকে মাংস প্রদান বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থ্যতা কামনা করে গাবতলীর উজগ্রামে দোয়া মাহফিল ১১০টি পরিবারের মুখে হাসি ফুটালেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মওদুদ আহম্মেদ জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র সাবেক মহাসচিব সাজ্জাদুল কবির মারা গেছেন নেতৃবৃন্দ’র শোক গাবতলীর মহিষাবান ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিএফ’র চাল বিতরণ জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র জেলা সদস্য বাবু’র পিতার মৃত্যুতে নেতৃবৃন্দ’র শোক সোনাতলায় দিনদিন বেরেই চলেছে চোরের উপদ্রব-কৌশলে আবারো ইজিবাইক চুড়ি নন্দীগ্রামে নিজস্ব অর্থায়নে অসহায়দের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন এম পি মোশারফ হোসেন কালাই ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিএফের চাল বিতরণ করলেন ইউ পি চেয়ারম্যান হান্নান বগুড়ায় পুকুরে ডুবে বৃদ্ধের মৃত্যু

বিশ্ব ভালোবাসা দিবসকে সামনে রেখে সোনাতলায় ফুলচাষীরা এখন ব্যস্ত

বিশ্ব ভালোবাসা দিবসকে সামনে রেখে সোনাতলায় ফুলচাষীরা এখন ব্যস্ত

বদিউদ-জ্জামান মুকুল,ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বিশ্ব ভালোবাসা দিবসকে সামনে রেখে বগুড়ার সোনাতলার প্রায় শতাধিক ফুলচাষী এখন ফুল পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় অতিবাহিত করছে। ওই উপজেলায় ফুলের চারা বিক্রি করে মান্নান, তুহিন, পারভেজ, শাহিন, আনজুর মতো অনেকেই এখন সুখের নাগাল ফিরে পেয়েছে।
বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে দীর্ঘ প্রায় ১৪/১৫ বছর যাবত ধরে প্রায় শতাধিক ফুলচাষী ফুলের ও ফলের চারা বিক্রি করে তাদের অভাবী সংসারে সুখের নাগাল ফিরে পেয়েছে। এমনকি সংসার পরিচালনার পাশাপাশি ছেলেমেয়েদের লেখাপড়া ও ব্যাংক ব্যালেন্স গড়ে তুলেছে। নানা ধরনের বাহারী ফুল ও ফলের চারা তারা রোপন করে সংসারে বাড়তি অর্থ উপার্জন করে সুখের স্বপ্ন দেখছে।
উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলাটি যমুনা ও বাঙালী নদী দ্বারা বেষ্টিত। এই উপজেলার মাটি ফুল চাষের উপযোগী। এখানকার প্রায় শতাধিক কৃষক দীর্ঘদিন যাবত ফুল চাষ করে আসছে। তারা অনেকে এখন অভাব অনটন দূর করে সুখের নাগাল ফিরে পেয়েছে।
এ বিষয়ে সোনাতলা সদর ইউনিয়নের রানীরপাড়া গ্রামের ফুলচাষী আব্দুল মান্নান (৪৯) জানান, তার নিজের দেড় বিঘা জমি রয়েছে। এছাড়াও তিনি আরও দুই বিঘা জমি এগ্রিমেন্ট নিয়ে বিগত ২৫ বছর যাবত ফুল চাষ করে আসছে। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ ও বনজ বৃক্ষের চারা বিক্রি করেন। এতে তার সংসার চলে বেশ ভালো। প্রতিবছর ফুল বিক্রি করে তিনি ৩/৪ লাখ টাকা আয় করেন। এছাড়াও সোনাতলা সদর ইউনিয়নের সুজাইতপুর গ্রামের কৃষক শাকিলুজ্জামান জানান, তিনি প্রায় ৩ বিঘা জমিতে ফুলের চাষ করেছেন। দীর্ঘ প্রায় ১০/১২ বছর যাবত তিনি ফুলের চারা ও ফুল বিক্রি করে বেশ লাভবান হয়েছেন। এছাড়াও চমরগাছা মোন্তেজার রহমান ও সোনাতলা বন্দরের মুকুল মিয়া জানান, বেকারত্ব জীবনের অবসান ঘটিয়ে এখন তারা ফুল বিক্রি করে লাখপতি। ফুল চাষ করে তাদের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়েছে।
এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ মাসুদ আহমেদ জানান, সামনে বিশ্ব ভালোবাসা দিবসকে সামনে রেখে বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার কৃষকেরা এখন ব্যস্ত সময় অতিবাহিত করছে। এবার ওই উপজেলায় প্রায় শতাধিক কৃষক ফুল চাষ করেছেন। এতে করে তারা বাড়তি আয় করে সংসারে সুখের নাগাল ফিরে পেয়েছেন। এছাড়াও অনেকেই বেকারত্বের অভসান ঘটিয়ে লাখপতি হয়েছে।

শেয়ারকরুন: