বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
বগুড়ায় নূরানী এইচকিউ মডেল মাদ্রাসার তাফসীরুল কুরআন মাহফিল অনুষ্ঠিত আত্মহননঃ  একূল-ওকূল হারাতে হয় প্রাচীর নির্মাণের সৃষ্ঠজটিলতা নিরসনকল্পে গাবতলীর সোন্দাবাড়ী হাইস্কুলে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত বগুড়ার শিবগঞ্জের বাঘমারা দাখিল মাদ্রাসার সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সাংবাদিক আতিক রহমান গাবতলীতে অভ্যন্তরীণ আমন ধান-চাল সংগ্রহের উদ্বোধন করলেন রবিন খান রাজধানীর রামপুরায় বাসচাপায় এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু চালক আটক বগুড়া র‌্যাবের অভিযানে ৫৮১ পিস ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেটসহ ১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কাহালুতে ১ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী সহ ৫ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল কাহালু খাদ্য গুদামে আমন ধান ও চাল সংগ্রহের উদ্বোধন বিএনপি নেতা মতি’র মাগফিরাত কামনায় গাবতলীর সোনারায় ইউনিয়ন বিএনপির দোয়া

মির্জা কাদেরের নাম কেটে দিলে মামলা নেবে পুলিশ

মির্জা কাদেরের নাম কেটে দিলে মামলা নেবে পুলিশ

অনলাইন ডেস্কঃ নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের মির্জা কাদের ও বাদল গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যাওয়া আলাউদ্দিনের পরিবারের মামলা নিচ্ছেনা বলে পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে নিহতের স্বজনরা।
১২ মার্চ শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের চরকালী গ্রামে নিহতের নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তার পরিবার।
সংবাদ সম্মেলনে নিহতের মা মরিয়মের নেছা ও ছোট ভাই এমদাদ হোসেন এ হত্যাকাণ্ডের জন্য বসুরহাট পৌরসভার মেয়র কাদের মির্জাকে দায়ী করে জড়িতদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি করেন। একই সাথে ঘটনার তিন দিন অতিবাহিত হলেও নিহতের পরিবারের হত্যা মামলা পুলিশ রুজু না করায় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
নিহতের ছোট ভাই এমদাদ হোসেন বলেন, ‘বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) রাত ৮টার দিকে মামলার এজহার নিয়ে থানায় যাই। মামলার স্লিপটি ওসি সাহেবকে দিলে মামালার প্রথম আসামি তারা মির্জার নাম দেখেন। এরপর ওসি মির্জার নামটি কেটে দিলে তারা মামলা নিবে বলে জানান।’
এরআগে বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) নোয়াখালী পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, ‘মামলা রেকর্ড হয়নি। এজাহারে সমস্যা আছে। ওনাকে বলা হয়েছে। পরে উনি ঠিক করে আনবেন বলেছেন।’
প্রসঙ্গত, গত মঙ্গলবার (৯ মার্চ) থেমে থেমে মধ্যরাত পর্যন্ত ক্ষমতাসীন দলের দুই গ্রুপের অনুসারিরা বসুরহাট বাজারের বিভিন্নস্থানে ককটেল বিস্ফোরণ, গোলাগুলি ও ভাঙচুর চালায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে চার পুলিশসহ অন্তত ৫০ জন আহত হন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গুলিবিদ্ধ সিএনজি চালক ও স্থানীয় যুবলীগ কর্মী মো. আলাউদ্দিন মারা যান।

শেয়ারকরুন: