সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১৬ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
গাবতলীতে যুবদল নেতা সোহাগ অসুস্থ্য ॥ টিএমএসএস হাসপাতালে ভর্তি সোহেল সভাপতি, মনিন্দ্র সম্পাদক গাবতলীর সুখানপুকুর ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সম্মেলন বগুড়ায় ২৯৭ তম রোভার স্কাউট লিডার ওরিয়েন্টেশন কোর্স’২১ অনুষ্ঠিত গাবতলীর কাগইলে প্রতিন্ধীদের কল্যাণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত গাবতলীর দক্ষিনপাড়া লাংলু তরুণ সংঘ উন্নয়ন ক্লাব উদ্বোধন কাহালুর ডোমরগ্রাম কেন্দ্রীয় বড় জামে মসজিদের ছাদ ঢালাই কাজের উদ্বোধন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুলেল তোড়া দিয়ে শ্রদ্ধা জানালেন নব-গঠিত কেন্দ্রীয় কৃষকদলের নেতৃবৃন্দ ধ্বংসের শেষ ধাপে ঐতিহ্যবাহী তুষভান্ডার জমিদার বাড়ী বগুড়ায় দেড় কেজি গাজা ও চাপাতি সহ গ্রেফতারঃ ১ সোনাতলায় হাইস্কুল মাঠে ফুটবল টুর্ণামেন্ট উদ্বোধন কামালেরপাড়া একাদশের কাছে বিশুরপাড়া গ্রাম উন্নয়ন সংস্থা ২-১ গোলে পরাজিত

শেরপুরে কে হবেন পৌর পিতা?

শেরপুরে কে হবেন পৌর পিতা?

আবু রায়হান রানা, শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়া জেলার প্রাচীন শেরপুর পৌরসভার নির্বাচনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে ততই জমে উঠছে। পৌষের শীত ও করোনা ভাইরাস উপেক্ষা করে প্রচার-প্রচারণায় এলাকা সরগরম করে রেখেছেন অর্ধশত মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থী। নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ-বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে ত্রিমুখী লড়াইয়ের সম্ভাবনা রয়েছে।
নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী চার প্রার্থী হলেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আব্দুস সাত্তার (নৌকা), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) মনোনীত প্রার্থী স্বাধীন কুমার কুন্ডু (ধানের শীষ), স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিএনপি থেকে বহিস্কৃত) জানে আলম খোকা (জগ) ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন বাংলাদেশ মনোনীত প্রার্থী এমরান কামাল ইমরান (হাতপাখা)। এছাড়া সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরের ৩টি পদে ১০ জন এবং ৯টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন সর্বমোট ৫০ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
নির্বাচনে মেয়র পদে ৪ জন প্রার্থী হলেও মূল লড়াই হতে পারে বর্তমান মেয়র আওয়ামী লীগের উপজেলা শাখার সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আব্দুস সাত্তার, সাবেক মেয়র বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য স্বাধীন কুমার কুন্ডু ও সাবেক মেয়র বিএনপি থেকে বহিস্কৃত নেতা জানে আলম খোকার মধ্যে। বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বিশেষ সুবিধাও পেতে পারেন।
বর্তমান মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব আব্দুস সাত্তার জানান, বিগত ৫ বছরে পৌরসভায় ৫০ কোটি টাকার উন্নয়ন হয়েছে। আরও সাড়ে ৮ কোটি টাকার কাজ শুরু হয়েছে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় জনগণ আবারো নৌকা প্রতীকে ভোট দিবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
বিএনপির প্রার্থী সাবেক মেয়র স্বাধীন কুমার কুন্ডু জানান, বিগত সময়ে পৌরবাসী উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হয়েছে। আমি সাধ্যমত উন্নয়নের চেষ্টা করেছিলাম। তাই বিদ্রোহী প্রার্থী থাকলেও শেষ পর্যন্ত ধানের শীষের বিজয় হবেই।
স্বতন্ত্র প্রার্থী জানে আলম খোকা জানান, নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হলে পৌরসভার উন্নয়ন বঞ্চিত জনগণ আমাকে জগ মার্কায় ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবে ইনশাআল্লাহ। আমি নির্বাচিত হলে শেরপুর পৌরসভাকে মডেল পৌরসভা হিসাবে গড়ে তুলবো।
শেরপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারি রির্টানিং অফিসার মোছা. আছিয়া খাতুন জানান, শেরপুর পৌরসভায় ১১টি ভোট কেন্দ্র গোপন ব্যালটের মাধ্যমে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হবে।
তিনি আরো জানান, নির্বাচনে আচরণ বিধি বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে ৩জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এছাড়া ভোটকেন্দ্রে পর্যাপ্ত সংখ্যক নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন থাকবে। শান্তিপুর্ণ ও উৎসব মুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

শেয়ারকরুন: