রবিবার, ২০ Jun ২০২১, ০৭:৪৯ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
মহিলা ক্রিকেটদলের অধিনায়ককে গাবতলীতে ফুলেল শুভেচ্ছা আদমদীঘিতে বিলুপ্তীর পথে ঐতিহ্যবাহী বাঁশ শিল্প কাহালুতে ২য় গর্যায় ৩০ট গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে দূর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডে পদ পেলেন পত্নীতলার রুবাইত হাসান সান্তাহারে ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কাহালু পৌর মেয়রকে সচিবালয়ে প্রবেশের কার্ড করে নিয়ে দিলেন এম পি মোশারফ হোসেন কাহালুতে চোর সন্দেহে যুবককে বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন কাহালুতে ৫ জুয়াড়ী আটক ডাঃ জোবাইদা’র জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে গাবতলীতে ছাত্রদলের দোয়া মাহফিল ও খাবার বিতরণ গাবতলীর বাগবাড়ীতে মসজিদ নির্মাণ কাজের উদ্ধোধন করলেন ডাঃ পাভেল

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের গরিমসি ভ্যান ওঠে, ব্রীজ কাঁপে, ভয়ে পথচারী নড়ে চড়ে বসে!

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের গরিমসি ভ্যান ওঠে, ব্রীজ কাঁপে, ভয়ে পথচারী নড়ে চড়ে বসে!

বদিউদ-জ্জামান মুকুল,ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বাস-ট্রাক নয়, ভ্যান গাড়ী উঠলেই কেঁপে ওঠে বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার সুখদহ নদীর উপর নির্মিত ঠাকুরপাড়ার বুড়া মেলা ব্রীজ। ফলে ওই ব্রীজের উপর দিয়ে যাতায়াতকারী যাত্রীরা পরিবহনে যেতে নড়ে চড়ে বসে।
মাত্র ২৪/২৫ বছর পূর্বে বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার জোড়গাছা ইউনিয়নের ঠাকুরপাড়া বুড়া মেলা নামক স্থানে সুখদহ নদীর উপর প্রায় ৮৪ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয় একটি আরসিসি গার্ডার ব্রীজ। ব্রীজটি নির্মাণ কালে প্রশস্ত করা হয় মাত্র ৬ ফিট।ফলে একই সাথে দুটি গাড়ি যাতায়াত করতে পারে না। এমনকি বাস-ট্রাক নয়, ভ্যান ও অটো গাড়ি ওই ব্রীজের উপর উঠলেই কেঁপে ওঠে পুরো ব্রীজটি। ফলে যেকোন ধরনের পরিবহনে যাতায়াত করতে পথচারীরা ভয়ে নড়েচড়ে বসে। ওই সরু ব্রীজ দিয়ে পারাপার হতে গিয়ে সংবাদকর্মী সহ প্রায় দুই ডজন নারী-পুরুষ দূর্ঘটনার স্বীকার হয়েছে। জনগুরুত্বপুর্ণ ওই ব্রীজের উপর দিয়ে সোনাতলা ও সারিয়াকান্দি উপজেলার প্রায় ১৪/১৫টি ইউনিয়নের মানুষ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করেন। এছাড়াও কৃষক তাদের উৎপাদিত কৃষি পণ্য ওই ব্রীজের উপর দিয়ে বিভিন্ন ধরনের পরিবহন যোগে বিভিন্ন হাট বাজারে বিক্রির জন্য নিয়ে যায়। এমনকি কোমলমতি শিক্ষার্থী সহ সকল পেশার লোকজন ওই খেয়াঘাটের উপর দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করেন।

এ বিষয়ে শেখাহাতী গ্রামের খোদেজা বেগম, চরপাড়া গ্রামের সানজিদা আকতার ডলি, পোড়াপাইকর এলাকার আমিনুল ইসলাম, সাজু মিয়া জানান, ওই ব্রীজের উপর দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে মনে হয় কখন যেন ব্রীজটি ভেঙ্গে জীবন প্রদীপ নিভে যায়।
স্থানীয় লোকজন জানান, প্রয়াত সংসদ সদস্য এলাকাবাসীদের দাবির প্রেক্ষিতে ওই স্থানে নতুন করে ব্রীজ নির্মাণের প্রতিশ্রæতি দিয়ে গেছেন। এদিকে সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষের গরিমসির কারণে আজও ব্রীজটি নির্মাণের জন্য মাটি পরীক্ষা করা হয়নি।
এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এড. মিনহাদুজ্জামান লীটন ও স্থানীয় জোড়গাছা ইউপি চেয়ারম্যান রোস্তম আলী মন্ডল জানান, এটি একটি জনগুরুত্বপূর্ণ খেয়াঘাট। দ্রুত সময়ের মধ্যে ওই খেয়াঘাটে নতুন করে ব্রীজ নির্মাণের দাবি তুলেছে এলাকাবাসী। দ্রুত সময়ের মধ্যে ব্রীজ নির্মাণ না হলে যেকোন সময় ব্রীজটি ভেঙ্গে পড়ে প্রাণহানীর আশংকা করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে উপসহকারী প্রকৌশলী আশাফুদৌলা বিপ্লব জানান, ওই খেয়াঘাটে নতুন করে ব্রীজ নির্মাণের প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অনুমোদন দিলেই টেন্ডার প্রক্রিয়া শুরু হবে।

শেয়ারকরুন: