সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:১৫ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
গাবতলীতে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের সাথে মতবিনিময় প্রধান অতিথি রাগেবুল আহসান রিপু গাবতলীতে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত মোকামতলায় এলপিজি অটো গ্যাস ষ্টেশনের উদ্বোধন কাহালুর পাইকড় ইউনিয়নে সরকারি খরচে আইনগত সহায়তা প্রদান বিষয়ক প্রাতিষ্ঠানিক গণশুনানী অনুষ্ঠিত ডোমারে সড়ক দূঘর্টনায় যুবক নিহত গাবতলীতে শিক্ষক সুজাকে লাঞ্ছিত করায় সুজনের নিন্দা গাবতলীতে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের মাগফিরাত ও জীবিতদের কল্যাণ কামনায় দোয়া মাহফিল গাবতলীর নেপালতলী ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড’র কমিটি অনুমোদন বগুড়া সদরের নিশিন্দারা ইউনিয়নের দশটিকায় ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত সোনাতলা-গাবতলী সড়কে  ট্রাকের চাপায় পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী মৃত্যু হয়েছে

সান্তাহারে গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যা, পাষণ্ড স্বামী গ্রেপ্তার

সান্তাহারে গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যা, পাষণ্ড স্বামী গ্রেপ্তার

মোঃ শিমুল  হাসান,আদমদীঘি,(বগুড়া),প্রতিনিধিঃ বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহারে বৃষ্টি আক্তার (১৯) নামের গৃহবধূকে শ্বাসরোধ ও পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে স্বামী রমজান আলীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ২১ নভেম্বর শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় সান্তাহার পৌর এলাকার চা-বাগান মহল্লায় ঘটনাটি ঘটে। ওই দিন দুপুরে নিহতের মা শাহানাজ বেগম বাদী হয়ে থানায় বৃষ্টির স্বামী রমজান ও ননদ স্বপ্নাকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গত ৩ বছর আগে উপজেলার সান্তাহার পৌর শহরের কলসা মহল্লার মৃত ফারুক হোসেনের মেয়ে বৃষ্টির সাথে চা-বাগান মহল্লার সাইফুল ইসলামের ছেলে রমজান আলীর (২৫) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রথম স্ত্রীকে তালাক দিয়ে রমজান বৃষ্টিকে দ্বিতীয় বিয়ে করে। তারা চা-বাগান মহল্লায় বক্করের বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করে। রমজান কখনো হোটেলে কাজ করত আবার কখনো রিকশা চালাত। আর বৃষ্টি অন্যের বাসায় কাজ করত। গত বৃহস্পতিবার গ্রামীণ ব্যাংক থেকে ১৫ হাজার টাকা ঋণ নেয় বৃষ্টি। রমজান এ টাকা চেয়ে বৃষ্টির কাছে থেকে না পাওয়ায় তাকে নির্যাতন শুরু করে। একপর্যায়ে শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় স্বামী রমজান ও ননদ স্বপ্না মিলে তাকে পিটিয়ে ও গলায় ওড়নার ফাঁস দিয়ে হত্যা করে। এরপর কৌশলে তারা এই হত্যার ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে স্বামী-ননদ দুজন মিলে ভ্যানযোগে তাকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। সেখান থেকে লাশটি বাড়িতে নিয়ে আসে এবং প্রতিবেশীদের বলে স্ট্রোক করে বৃষ্টি মারা গেছে। স্থানীয়দের সন্দেহ হলে তারা পুলিশে খবর দেয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে রমজান দৌড়ে পালাতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে, কিন্তু ননদ লাশ রেখে কৌশলে পালিয়ে যায়। নিহতের মা শাহানাজ বেগমের দাবী, তার মেয়ের ওপর নির্যাতন চালাত রমজান। তিনি তার মেয়ের হত্যার সুষ্ঠু বিচার চান। এ বিষয়ে  বগুড়া সান্তাহার পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক আনিছুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, শনিবার দুপুরে ওই গৃহবধূর লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহতের মা শাহানাজ বেগম দুজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

শেয়ারকরুন: