সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০২:০৯ অপরাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
কাহালুর জামগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত রইছউল আলম মন্ডল রাকাব’র চেয়ারম্যান হিসেবে পুন:নিয়োগ গাবতলীর কদমতলীতে চেয়ারম্যান প্রার্থী গামা’র নির্বাচনী অফিস উদ্ধোধন গাবতলীতে বিদ্যুৎ খুটি থেকে সেচ পাম্পের তিনটি ট্রান্সফর্মার চুরি দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে অবস্থান নেয়ায় গাবতলীতে আ’লীগের ছয় নেতাকে বহিস্কার গাবতলীতে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের উদ্যোগে দোয়া অনুষ্ঠিত গাবতলীতে আগুনে পোড়া বাড়ী পরিদর্শন ও কম্বল বিতরণ করলেন ইউএনও রওনক জাহান গাবতলীতে ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণ সোনাতলায় ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছে আপন দুই সহোদর টিএমএসএস মমইন বিনোদন জগতে আইসক্রিম পার্লারের উদ্বোধন

সোনাতলায় কলেজ ছাত্র রবিউল হত্যার ১৮ দিনেও কোন রহস্য উদঘাটন হয়নি

সোনাতলায় কলেজ ছাত্র রবিউল হত্যার ১৮ দিনেও কোন রহস্য উদঘাটন হয়নি

মিনাজুল ইসলাম,ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ার সোনাতলার মেধাবী কলেজ ছাত্র রবিউল হত্যার ১৮ দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ প্রশাসন এ ঘটনার কোন রহস্য উদঘাটন হয়নি। ফলে রবিউল পরিবার দিশেহারা হয়ে পড়েছে।
স্থানীয় লোকজন সূত্রে জানা গেছে, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার দিগদাইড় গ্রামের এমদাদুল হকের স্ত্রী হামিদা বেগম ও ছেলে রবিউল ইসলাম (১৮) দীর্ঘ প্রায় ২/৩ বছর যাবত ঢাকায় গার্মেন্টস কর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সেখানে অবস্থানের এক পর্যায়ে গত ৩০ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ৯টার সময় মা ও ছেলে গার্মেন্টস এর দায়িত্ব পালন শেষে গাজিপুর জেলার কাশিমপুর উপজেলার সবুজ কলন এলাকায় বাসায় ফিরে আসে। এরপর মা ও ছেলে রাতের খাবার শেষে নিজ রুমে টিভি দেখছিল। এমন সময় ছেলে রবিউল ইসলাম তার মাকে অবগত করে রুমের বাহিরে চলে যায়। তার মা হামিদা বেগম রুমে টিভি দেখার এক পর্যায়ে ঘুমিয়ে পড়ে। এরপর রাত ১২টায় ঘুম থেকে জেগে ঘরের দরজা খোলা এবং ঘরে ছেলেকে দেখতে না পেয়ে বাসার বাহিরে খোঁজাখুজির জন্য বেরিয়ে পড়ে। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে তার মা হামিদা বেগম পার্শ্ববর্তী একটি অটো গ্যারেজে তার ছেলের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায়।
এ বিষয়ে কাশিমপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করা হয়েছে।
এ বিষয়ে রবিউলের মা হামিদা বেগম জানান, ছেলের মৃত্যুর ১৮ দিন অতিবাহিত হয়ে গেল। পুলিশ প্রশাসন কোন রহস্য খুজে পায়নি। তিনি আরও জানান, ছেলের মৃত্যুর সত্যতা ঘটনা উদযাটনের জন্য পুলিশ প্রশাসনের দৃষ্টি কামনা করেছেন।
এ বিষয়ে কাশিমপুর থানার একজন এসআই জানান, ওই যুবকের গলায় দড়ি লাগানো ঝুলন্ত লাশ করা হয়েছে। মেডিকেলের রিপোর্ট পাওয়া গেলে লাশটির সত্যতা পাওয়া যাবে।

শেয়ারকরুন: