শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতি প্রসঙ্গে আবারও জোরালো দাবী জানালেন এম পি মোশারফ প্রবীন সাংবাদিক সরওয়ারের মৃত্যুতে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র শোক গাবতলীতে ৩দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের সমাপনী অনুষ্ঠিত মরহুম আজম খানের সহধর্মিনীর সুস্থ্যতা কামনায় গাবতলীর দূর্গাহাটা ২নং ওয়ার্ড আ’লীগের উদ্যোগে দোয়া সোনাতলায় বাঁশহাটা গ্রামে গৃহবধুকে উত্যক্ত করার জেরে মারপিটে অটোচালক আহত বগুড়ায় আবু ত্ব-হা আদনান নিখোঁজের প্রতিবাদে মানববন্ধন আজম খাঁনের স্ত্রী’র সুস্থতা কামনায় গাবতলী উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের দোয়া মাহফিল আন্তনগর লালমনি ও রংপুর ট্রেনের টিকিট সরবরাহ না থাকায় যাত্রীদের বিড়ম্বনা স্বীকার হজ্জ ও ওমরাহ পালন করতে গিয়ে কেউ যেন হয়রানির স্বীকার না হয় সে বিষয়ে জাতীয় সংসদে কথা বললেন–এম পি মোশারফ হোসেন কাহালুতে ৫টি গাঁজার গাছ সহ এক ব্যক্তি আটক

সোনাতলায় জোড়গাছা ইউপি নির্বাচনে জনসমর্থনে এগিয়ে প্রভাষক রফিকুল ইসলাম মতিন

সোনাতলায় জোড়গাছা ইউপি নির্বাচনে জনসমর্থনে এগিয়ে প্রভাষক রফিকুল ইসলাম মতিন

রিমন আহম্মেদ বিকাশঃ বগুড়ার সোনাতলায় আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জোড়গাছা ইউনিয়নে এবার চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে জনসমর্থনে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছেন, জোড়গাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও ভেলুরপাড়া ড.এনামুল হক ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক রফিকুল ইসলাম মতিন।

তিনি ওই ইউনিয়নের জোড়গাছা গ্রামের মোঃ আনিছুর রহমান সরকার ও মোছাঃ ফেন্সি বেগমের বড় ছেলে। স্কুল জীবন থেকেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারন করে ছাত্রলীগের মাধ্যমে তার রাজনীতি শুরু।
সরেজমিনে জানাযায়,প্রভাষক রফিকুল ইসলাম মতিন একজন আওয়ামী পরিবারের সন্তান। তিনি জোড়গাছা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির চার বারের সভাপতি,ভেলুরপাড়া এনায়েত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই বার কফ সদস্য ও মধ্য দিঘলকান্দি আঃ বাছেদ দাখিল মাদ্রাসার তিন বার সভাপতির দায়িত্ব অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে পালন করেন। যার ফলে ওই ইউনিয়নের যুবসমাজ সহ সবার সাথে তার নিবিড় সম্পর্ক গড়ে উঠেছে।
এ ছাড়াও রফিকুল ইসলাম মতিন ইউনিয়ন ছাত্রলীগ,উপজেলা যুবলীগ ও বর্তমানে জোড়গাছা ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করা কালে তৃণমুল পর্যায়ের আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ সহ সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে দলকে সু-সংগঠিত করার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভুমিকা পালন করে যাচ্ছেন।
মতিন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ব হয়ে তরুন প্রজন্মকে সু-সংগঠিত করে জাতীয় সংসদ,উপজেলা পরিষদ ও জোড়গাছা ইউপি’তে নৌকা প্রতীকের বিজয় সুনিশ্চত করতে সকল নেতাকর্মীকে সাথে নিয়ে নির্বাচনী এলাকায় দ্বারে দ্বারে গিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন বার্তা পৌছে দেওয়ার জন্য এলাকায় সার্বক্ষানিক দলের হয়ে কাজ করেছেন।
জোড়গাছা ইউনিয়নবাসীর অনেকই এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন,রফিকুল ইসলাম মতিন করোনাকালীন ও বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় তিনি নিজস্ব অর্থায়নে দুঃস্থ ও অসহায় হাজারো মানুষের মাঝে বস্ত্র ও খাদ্য সামগ্রী প্রদান করেছেন। এলাকার মানুষের বিপদে-আপদে সব সময় পাশে থেকেছেন। তারা আরও জানান, রফিকুল ইসলাম মতিন একজন পরীক্ষিত নেতা। তিনি দলের সাথে কখনও বেঈমানী করেননি। তাই তার মতো নেতাকে মূল্যায়ন করে আগামী নির্বাচনে জোড়গাছা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক দিলে বিপুল ভোটে বিজয় সুনিশ্চিত হবে।
চেয়ারম্যান প্রার্থী রফিকুল ইসলাম মতিন এ প্রতিবেদককে জানান,স্কুল জীবনে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আদর্শিত হয়ে আমার রাজনীতির গুরু বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান,উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং অন্যভিন্ন সোনাতলার রুপকার এ্যাড.মিনহাদুজ্জামান লীটনের হাত ধরে ছাত্রলীগে যোগদান করি। এরপর সোনাতলা-সারিয়াকান্দির উন্নয়নের রুপকার.আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের কান্ডারী ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার একান্ত আস্থাভাজন এবং কাছের মানুষ প্রয়াত এমপি আব্দুল মান্নান এর দিকনির্দেশনায় দলের হয়ে কাজ করেছি। বর্তমান এমপি সাহাদারা মান্নানের একান্ত অনুগত হয়ে কাজ করে যাচ্ছি। গত তে বিএনপি-জামাত জোট সরকারের আমলে অনেক মামলা-হামলার শিকারসহ অনেক নির্যাতিত হয়েছি। ২০১৬ সালের ৭ আগস্ট সোনাতলা পৌর নির্বাচনে নৌকার হয়ে কাজ করতে গিয়ে কঠিন নির্যাতনের শিকার হয়েছি। তাই সবকিছু বিচার বিশ্লেষন করে এমপি সাহাদারা মান্নান মহোদয়,জেলা আওয়ামী লীগসহ মনোনয়ন বোর্ডের নীতিনির্ধারনীগণ ও বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে আগামী জোড়গাছা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক দিলে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে জোড়গাছাকে একটি ডিজিটাল মডেল ইউনিয়নে পরিণত করবো ইন্শাল্লাহ।

শেয়ারকরুন: