বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:৪০ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
বগুড়ায় নূরানী এইচকিউ মডেল মাদ্রাসার তাফসীরুল কুরআন মাহফিল অনুষ্ঠিত আত্মহননঃ  একূল-ওকূল হারাতে হয় প্রাচীর নির্মাণের সৃষ্ঠজটিলতা নিরসনকল্পে গাবতলীর সোন্দাবাড়ী হাইস্কুলে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত বগুড়ার শিবগঞ্জের বাঘমারা দাখিল মাদ্রাসার সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সাংবাদিক আতিক রহমান গাবতলীতে অভ্যন্তরীণ আমন ধান-চাল সংগ্রহের উদ্বোধন করলেন রবিন খান রাজধানীর রামপুরায় বাসচাপায় এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু চালক আটক বগুড়া র‌্যাবের অভিযানে ৫৮১ পিস ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেটসহ ১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কাহালুতে ১ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী সহ ৫ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল কাহালু খাদ্য গুদামে আমন ধান ও চাল সংগ্রহের উদ্বোধন বিএনপি নেতা মতি’র মাগফিরাত কামনায় গাবতলীর সোনারায় ইউনিয়ন বিএনপির দোয়া

সোনাতলায় স্কুল ছাত্রীকে পাটক্ষেতে ধর্ষন সহযোগী আটকঃ

সোনাতলায় স্কুল ছাত্রীকে পাটক্ষেতে ধর্ষন সহযোগী আটকঃ

রিমন আহম্মেদ বিকাশঃ বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার জোড়গাছা ইউনিয়নের খোদা দিলেরপাড়া গ্রামের ৯ম শ্রেণির স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ উঠেছে।

এ বিষয়ে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে সোনাতলা থানায় ধর্ষন মামলা দায়ের করেছে।

পুলিশ ওই ছাত্রীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য বগুড়া প্রেরণ করেছে।

এ ঘটনায় পুলিশ ধর্ষণকারীর সহযোগী আল-আমিন (২২)কে গ্রেফতার করেছে। আল-আমিন একই গ্রামের শফিকুল ইসলামে ছেলে।
মামলা সুত্রে জানা যায়, সোনাতলা পৌর এলাকার আগুনিয়াতাইড় গ্রামের মোস্তাফিজার রহমানের ছেলে মুছা এর সাথে উপজেলা জোরগাছা ইউনিয়নের খোদা দিলেরপাড়া গ্রামের স্কুল পড়ুয়া মেয়ের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছে। মুছার নানাবাড়ী মেয়েটির বাড়ির পাশে। এ সুবাদে মুছা নানার বাড়িতে গিয়ে মামাতো ভাই আল-আমিনের সাহায্যে মেয়েটির সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সম্পর্কের ফলশ্রুতিতে গত ৮ জুন মঙ্গলবার দিবাগত রাত্রী অনুমান সাড়ে দশটায় বাড়িতে বিদ্যুৎ না থাকার সুবাদে মুছা তার মামাতো ভাই আল-আমিনের সাহয্যে নিয়ে মেয়েটিকে ডেকে বাড়ির উত্তর পাশে পাট ক্ষেতে নিয়ে বিভিন্ন প্রকার প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষন করে।

মেয়েটি বাড়িতে এসে ধর্ষনের বিষয়ে তার মাকে অবগত করে। ঘটনাটি উভয় পক্ষের মধ্যে রফাদফার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে মেয়ের মা বাদী হয়ে গত ১১ জুন শুক্রবার ধর্ষক মুছা ও মুছার মামাতো ভাই (সহযোগী) আল-আমিনকে আসামী করে থানায় ধর্ষন মামলা দায়ের করেন। এঘটনায় পুলিশ ওই দিনেই সহযোগী আল-আমিনকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে ১২ জুন শনিবার জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন। মামলার মূল আসামী ধর্ষক মুছা পলাতক রয়েছে।

এ বিষয়ে থানা অফিসার ইনচার্জ রেজাউল করিম রেজা জানান, ধর্ষনের অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। ধর্ষকের সহযোগী আসামী আল-আমিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মূল আসামী মুছাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

শেয়ারকরুন: