রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০১:৪৭ অপরাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও বিদেশে সু-চিকিৎসার দাবীতে গাবতলীর চকবোচাই বন্দরে মশাল মিছিল গাবতলী মহিলা কলেজে নবীন বরণ ও বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত সোনাতলায় সাবেক সেনা সদস্য আমজাদের ইন্তেকাল সোনাতলায় জাহানাবাদ আলিম মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা বিএনপির চেয়ারপাস্ন খালেদা জিয়ার সুস্থ্যতা কামনায় কাগইলে দোয়া গাবতলীর মহিষাবানে সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত গাবতলীতে বিএনপি নেতা মতি’র রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া গাবতলীতে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার-১ গাবতলীতে খালেদার সুস্থ্যতা কামনায় পৌর বিএনপির দোয়া গাবতলীর উজগ্রাম ছয়ঘড়িয়াপাড়া সমাজ কল্যাণ ক্লাব উদ্বোধন ও দোয়া মাহফিল

সোনাতলা পৌরসভা নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চান নান্নু

সোনাতলা পৌরসভা নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চান নান্নু

বদিউদ-জ্জামান মুকুল,ষ্টাফ রির্পোটারঃ ২০২১ সালে বগুড়ার সোনাতলা পৌরসভা নির্বাচনে সকলের প্রিয় ব্যক্তিত্ব বাংলাদেশ আওয়ামীগ জেলা কমিটির সদস্য ও জেলা শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি, সোনাতলা বণিক ও কেন্দ্রীয় দোকান মালিক সমিতির সভাপতি, অসহায় দরিদ্র মানুষের আস্থাভাজন, অন্যায়ের বিপক্ষের কন্ঠস্বর মোঃ জাহাঙ্গীর আলম আকন্দ নান্নু বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রাথী হিসেবে সোনাতলা পৌরসভার মেয়র পদে লড়তে চান। ওই পৌরসভায় সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় ৩ জনের নাম ভোটারদের মুখে শোনা গেলেও জনপ্রিয়তায় শীর্ষে মোঃ জাহাঙ্গীর আলম আকন্দ নান্নু। প্রয়াত সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের উন্নয়ন উৎপাদনের ধারা অব্যাহত রাখা এবং তার পথ অনুসরণ করে দৃশ্যমান পৌর এলাকার উন্নয়ন ধরে রাখা এবং পৌরবাসীর মৌলিক নাগরিক সকল সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতেই তিনি নৌকার মাঝি হতে চান।
১৯৮১ সালের সোনাতলার কাবিলপুর গ্রামে এক মুসলিম সম্ভ্রান্ত ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন তিনি। পিতা মরহুম আব্দুস সাত্তার আকন্দ ও মাতা মরহুমা আলতাফুন্নেছার পুত্র নান্নু। জাহাঙ্গীর আলম নান্নুর শিক্ষাগত যোগ্যতা মাস্টার্স ডিগ্রী। দুই পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক তিনি। রাজনীতির পাশাপাশি তার পেশা ব্যবসা। তিনি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত। এছাড়াও স্বৈরচারী এরশাদ সরকার পতন আন্দোলনে তিনি বলিষ্ঠ ভুমিকা পালন করেন। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের অন্যায় ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে তিনি নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে সকল আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এছাড়াও ফখরুদ্দিন-মঈন উদ্দিন সরকারের শাসনামলে তিনি ষড়যন্ত্রের স্বীকার হিসেবে এবং আওয়ামীলীগের একজন বলিষ্ঠ কর্মী ও নেতা হিসেবে সেনাবাহিনীর হাতে গ্রেফতার হন। এতে করে তিনি ব্যবসায়িক ও আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হন।
তিনি দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন মসজিদ-মাদ্রাসায় দান অনুদান, অসহায় ও দরিদ্র মানুষদেরকে আর্থিক সহযোগিতা করে নিরলসভাবে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। অপরদিকে ঈদ ও দূর্গা পূজার সময় আর্থিকভাবে গরীব ও অসহায় লোকজনদেরকে সাহায্য সহযোগিতা করে মানব সেবার বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করে যাচ্ছেন। এছাড়াও দায়গ্রস্থ কন্যার পিতার পাশে দাঁড়ানোই যেন তার ব্যক্তিগত একটি অভ্যাস। সকল প্রাকৃতিক দূর্যোগে পৌরবাসীর সাথে থেকে কাজ করে পৌরবাসীর মনিকোঠায় স্থান দখল করে নিতে সক্ষম হয়েছেন।
জাহাঙ্গীর আলম আকন্দ নান্নু জানান, তিনি নির্বাচিত হলে, প্রয়াত সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নানের স্বপ্নের সোনাতলা পৌরসভা গড়ে তুলবেন। পৌরবাসীর মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করাই হবে তার অঙ্গীকার ও প্রথম কাজ। মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবেন। অন্যায়ের বিপক্ষে পৌরবাসীকে সাথে নিয়ে লড়বেন। নাগরিক সকল সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করবেন। ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করবেন। সোনাতলায় একটি দৃষ্টি নন্দন শিশুপার্ক গড়ে তুলবেন।
তিনি বর্তমান পৌর মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণের পর গত সোয়া চার বছরে ‘গ’ শ্রেণির পৌরসভাকে ‘খ’ শ্রেণিতে উন্নীত করেছেন।
উল্লেখ্য, একটি মহল আমাকে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে অপপ্রচার চালাচ্ছে। প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে, বিগত সোনাতলা পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী তালিকায় তৃণমূল পর্যায় থেকে আমার নাম ষড়যন্ত্র ও প্রতিহিংসামূলক কেন্দ্রে না পাঠানোর জন্য আমি দলীয় মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত হই এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে সোনাতলার পৌরসভার প্রথম মেয়র নির্বাচিত হই।

শেয়ারকরুন: