রবিবার, ২৫ Jul ২০২১, ১১:১৬ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
বিএনপির দুস্থ নেতাকর্মী, এতিমখানা ও নব মুসলিমকে মাংস প্রদান বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থ্যতা কামনা করে গাবতলীর উজগ্রামে দোয়া মাহফিল ১১০টি পরিবারের মুখে হাসি ফুটালেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মওদুদ আহম্মেদ জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র সাবেক মহাসচিব সাজ্জাদুল কবির মারা গেছেন নেতৃবৃন্দ’র শোক গাবতলীর মহিষাবান ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিএফ’র চাল বিতরণ জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র জেলা সদস্য বাবু’র পিতার মৃত্যুতে নেতৃবৃন্দ’র শোক সোনাতলায় দিনদিন বেরেই চলেছে চোরের উপদ্রব-কৌশলে আবারো ইজিবাইক চুড়ি নন্দীগ্রামে নিজস্ব অর্থায়নে অসহায়দের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন এম পি মোশারফ হোসেন কালাই ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিএফের চাল বিতরণ করলেন ইউ পি চেয়ারম্যান হান্নান

সোনাতলা সরকারী নাজির আখতার কলেজের পুরাতন ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ

সোনাতলা সরকারী নাজির আখতার কলেজের পুরাতন ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ

বদিউদ-জ্জামান মুকুল,ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়া জেলায় সরকারী নাজির আকতার কলেজে লেখাপড়ার মান বাড়ানো হলেও বাড়েনি সরকারী সুযোগ সুবিধা। ফলে প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে প্রতিষ্ঠিত প্রায় ২শ ফিট দীর্ঘ একটি দ্বিতল ভবন অর্থের অভাবে সংস্কার করতে না পারায় বর্তমানে তা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। অথচ সরকারী কলেজের অবস্থানের দিক থেকে অত্র কলেজটি জেলায় সরকারী কলেজের তালিকায় চতুর্থ।
বগুড়া জেলা সদর থেকে প্রায় ৩১ কিলোমিটার উত্তরে অবস্থিত সোনাতলা উপজেলা। ১৯৬৭ সালে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গের যৌথ প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠিত হয় সোনাতলা নাজির আখতার কলেজ। প্রতিষ্ঠার মাত্র ১৭ বছরের মাথায় তৎকালীন এরশাদ সরকারের শাসনামলে ১৯৮৪ সালে কলেজটি জাতীয়করণের মর্যাদা পায়। প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে অদ্যবধি পাবলিক পরীক্ষায় ইর্ষান্বিত ফলাফল করলেও কলেজের প্রায় ২শ ফিট পূর্ব-পশ্চিম দিকে অবস্থিত দক্ষিণ দুয়ারী ভবনটির ছাদের প্লাস্টার ধ্বসে পড়ছে। অর্থ বরাদ্দ না থাকায় ভবনটি সংষ্কার করতে পারছেনা কলেজ কর্তৃপক্ষ। অত্র কলেজে একটি বিশাল খেলার মাঠ থাকলেও মাঠটি স্থানীয়দের পদচারনায় ও গবাদি পশুর অবাধে যাতায়াতের ফলে খেলার মাঠটি গো চারণ ভুমিতে পরিনত হয়েছে। এছাড়াও শিক্ষক-শিক্ষিকাদের আবাসিক ব্যবস্থা থাকলেও দীর্ঘদিনে সেই ভবনগুলো অর্থের অভাবে সংষ্কার করতে না পারায় ব্যবহারের অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। অত্র কলেজে ৬টি বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু রয়েছে। এছাড়াও উচ্চ মাধ্যমিক ও ডিগ্রী পর্যায়ে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত ।
অত্র কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ মাহবুবুল ইসলাম জানান, তিনি অত্র কলেজে যোগদানের পর থেকে লেখাপড়ার মান বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে পাবলিক পরীক্ষায় অত্র কলেজের শিক্ষার্থীরা ইষান্বিত ফলাফল করতে সক্ষম হয়। কলেজটিতে লেখাপড়ার মান বৃদ্ধি হলেও সরকারী সুযোগ সুবিধার দিক থেকে পিছিয়ে রয়েছে কলেজটি।

শেয়ারকরুন: