সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০১:১২ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
গবিন্দগঞ্জের উজিরেরপাড়া বাইগুনীতে জমি নিয়ে ত্রিমুখী বিরোধ- ঘরের বেড়া ভাংচুর গাবতলীতে ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত সুখানপুকুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত সোনাতলায় পিঁয়াজ চাষ বৃদ্ধি ও পাটবিজ উৎপাদনের লক্ষ্যে কৃষক প্রশিক্ষণ মোশাররফ হোসেন বগুড়ার সোনাতলায় গাজাগুরু তহসেন আলি সহ ৪ মাদক ব্যবসায়ী আটক নাট্যদিশারি আফসার আহমদ এর স্মরণসভা বগুড়া জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের কমিটি বাতিলের দাবীতে কাহালুতে মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত গাবতলীর জামিরবাড়িয়া পাকা সড়কে স্বেচ্ছাশ্রমে মেরামত গাবতলীর ১১জন বিসিএস ক্যাডারে নিয়োগপ্রাপ্ত ডাক্তারগণকে সংবর্ধণা সাম্প্রদায়িক সহিংসতা বন্ধ ও দোষীদের শাস্তির দাবীতে বগুড়ায় সুজনের মানববন্ধন

স্কুল পড়ুুয়া ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যায় ‘বন্ধু’কে আসামি করে মামলা

স্কুল পড়ুুয়া ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যায় ‘বন্ধু’কে আসামি করে মামলা

অনলাইন ডেস্কঃ রাজধানীর কলাবাগানে ইংরেজি মাধ্যমপড়ুয়া স্কুলছাত্রীকে (১৭) ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় একমাত্র আসামি নিহতের ‘বন্ধু’ তানভীর ইফতেফার দিহান (১৮)। বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) মধ্যরাতে ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে কলাবাগান থানায় মামলাটি দায়ের করেন। এ ঘটনায় হাসপাতাল থেকে আটক দিহানের তিন বন্ধুকেও জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। কলাবাগান থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) আ ফ ম আসাদুজ্জামান জাগো নিউজকে বলেন, গতরাতে তানভীর ইফতেফার দিহানকে (১৮) আসামি করে ছাত্রীর বাবা ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগে মামলা করেছেন। মামলাটির তদন্ত চলছে। ঘটনার সাথে আরও কেউ জড়িত আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।পুলিশ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) দুপুরে ধানমন্ডির আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কলাবাগান থানায় ফোন করে জানায়, এক তরুণ এক কিশোরীকে হাসপাতালে মৃত অবস্থায় এনেছেন। কিশোরীর শরীর থেকে রক্ত ঝরছে। ওই সময় নিউমার্কেট অঞ্চল পুলিশের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার (এসি) আবুল হাসান ওই তরুণকে আটকে রাখতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেন। কলাবাগান থানার পুলিশ দ্রুত হাসপাতালে গিয়ে ওই তরুণকে আটক করে। খবর পেয়ে ওই তরুণের তিন বন্ধু হাসপাতালে গেলে পুলিশ তাদেরও আটক করে। পরে চারজনকে কলাবাগান থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পুলিশ পরে স্কুলছাত্রীর লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

পুলিশের এসি আবুল হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক তরুণ দাবি করেছে, মেয়েটি তার পূর্বপরিচিত। বাসার সবাই ঢাকার বাইরে থাকার সুযোগে তাকে ডলফিন গলিতে তাদের ফ্ল্যাটে নিয়ে যান তিনি। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক হয়। এরপরই মেয়েটি অচেতন হয়ে পড়লে তিনি তাকে আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।
পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, সুরতহাল প্রতিবেদনে মেয়েটির শরীরে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়া গেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

শেয়ারকরুন: