শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৩০ অপরাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
গাবতলীতে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের মাগফিরাত ও জীবিতদের কল্যাণ কামনায় দোয়া মাহফিল গাবতলীর নেপালতলী ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড’র কমিটি অনুমোদন বগুড়া সদরের নিশিন্দারা ইউনিয়নের দশটিকায় ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত সোনাতলা-গাবতলী সড়কে  ট্রাকের চাপায় পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী মৃত্যু হয়েছে মাননীয় স্পিকার শহীদ জিয়ার লাশ কবরে আছে কি নেই এতদিন পরে তা কেন সংসদে আলোচনা হচ্ছে –এম পি মোশারফ হোসেন প্রধান শিক্ষককে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে গাবতলীতে শিক্ষকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান গাবতলীতে দর্জি শ্রমিকদের মাঝে ত্রাণের চাল বিতরণ সোনাতলায় খামারীদের প্রশিক্ষণে বিভাগীয় পরিচালকের পরিদর্শন কাহালুতে “প্রতিবন্ধী নারীর প্রতি সহিংসতা দূরীকরণে” উপজেলা সমন্বয় কমিটির মাসিক সভা গাবতলীতে নিখোঁজ হওয়ার ৩দিন পর এক মহিলার লাশ উদ্ধার

হত্যার রহস্য উদঘাটন গাবতলীতে ৪বন্ধু মিলে শামীমকে হত্যা ॥ আদালতে স্বীকারোক্তি

হত্যার রহস্য উদঘাটন গাবতলীতে ৪বন্ধু মিলে শামীমকে হত্যা ॥ আদালতে স্বীকারোক্তি

মুহাম্মাদ আবু মুসাঃ বগুড়া গাবতলীর নিজগ্রামের যুবক শামীম হোসেন (২৩) কে ৪বন্ধু মিলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতারী ভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। পরে পাশ্ববর্তী সোনাকানিয়া দহের আগারীর কচুরীপানা’র মধ্যে তার লাশটি রাখা হয়েছিল বলে গ্রেফতারকৃত আসামী পারভেজ প্রামানিক ওরফে হারেজ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। ১২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার বিকেলে বগুড়ার সিনিয়র চীপ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট নিস্কৃতি হাগিদক এর নিকট হারেজ ১৬৪ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। এ তথ্যটি জানিয়েছেন গাবতলী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ নুরুজ্জামান। তিনি (ওসি) জানান, লাশ উদ্ধারের পর প্রথমে একই গ্রামের আতিকুর রহমান নামের একজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়। এর পর ১২নভেম্বর বৃহস্পতিবার  একই গ্রামের মোন্তেজার রহমান প্রামানিকের ছেলে পারভেজ প্রামানিক ওরফে হারেজ ও বাবলু প্রামানিকের ছেলে আরাফাত হোসেনকে গ্রেফতার করে থানায় আনা হয়। ওই দিন হারেজকে আদালতে পাঠালে সে ম্যাজিষ্ট্রেট এর কাছে ১৬৪ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। জবানবন্দীতে হারেজ ও আরাফাতসহ ৪বন্ধু মিলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতারী ভাবে কুপিয়ে শামীম হোসেনকে হত্যা করে পাশর্^বর্তী সোনাকানিয়া দহের আগারীর কচুরীপানা’র মধ্যে লাশটি রাখা হয়েছিল। নিহত শামীম উপজেলার পাশ^বর্তী নশিপুর ইউনিয়নের নিজগ্রামের শাহাদত হোসেনের ছেলে। উল্লেখ্য, শামীম হোসেন গত ৬নভেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৮টায় কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে গেলে আর ফিরে আসেনি। তার ব্যবহারিত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যায়। ফলে আত্নীয় স্বজনসহ বিভিন্নস্থানে খোঁজাখুজি করে তার কোন সন্ধান পাওয়া না গেলে গত ৭নভেম্বর তার মামা মহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করেন। এর এক পর্যায়ে ৯নভেম্বর সকাল আনুমানিক ৭টায় উপজেলার মহিষাবান ইউনিয়নের সোনাকানিয়া দহের আগারীতে একজন কৃষক তার জমিতে কচুরীপানা পরিস্কার করতে গেলে কচুরীপানা’র মধ্যে লাশটি দেখতে পায়। পরে আশে পাশের লোকজনকে ঘটনাটি জানালে পুলিশকে সংবাদ দেয়া হয়। ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে লাশের সুরতহাল রির্পোট তৈরী করে ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়ে দেন। এ ঘটনায় নিহতের পিতা শাহাদত হোসেন বাদী হয়ে ওই দিনই থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

শেয়ারকরুন: