শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১১:২৪ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
গাবতলীতে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের কমিটি গঠন প্রধান অতিথি ইঞ্জিঃ ইশরাক হোসেন গাবতলী থানা ছাত্রদলের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত সোনাতলায় জোরপুর্বক জমিদখলের চেষ্টা অতঃপর বাড়িঘর ভাংচুর, লুটপাটসহ মারধরে আহত-৩ দেহের একটু রক্ত দিলে যদি বাঁচে একটি প্রাণ ধন্য তোমার পিতা মাতা মহৎ তোমার দান সোনাতলায় ছাত্রদলের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত সোনাতলায় পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রতিযোগিতার মাঠে চলছে প্রার্থীদের গনসংযোগ বগুড়া প্রেসক্লাবের সদস্য. দৈনিক চাঁদনী বাজার পত্রিকার সাবেক সম্পাদক মাকছুদুরের ইন্তেকাল গাবতলীর দক্ষিণপাড়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের কমিটি ঘোষনা সুখানপুকুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড যুবলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত গাবতলীতে আ’লীগের উদ্যোগে সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা

হামাগিরে ছোল পোল এখন কুনটি বসে পড়বি- চরগোদাগাড়ী স্কুলের অর্ধেক এখন নদীগর্ভে

হামাগিরে ছোল পোল এখন কুনটি বসে পড়বি- চরগোদাগাড়ী স্কুলের অর্ধেক এখন নদীগর্ভে

বদিউদ-জ্জামান মুকুল, স্টাফ রিপোর্টার: বাঙালী নদীর অব্যাহত ভাঙনে ইতিমধ্যেই চরগোদাগাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অর্ধেক অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। দুই একদিনের মধ্যে পুরো স্কুল ভবনটি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার আশংকা করছেন স্থানীয়রা। বিদ্যালয় ভবনটির অর্ধেক অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ায় ছেলেমেয়েদের ভবিষ্যত নিয়ে উদ্বীগ্ন হয়ে পড়েছে অভিভাবক মহল।
গত ৮/১০ বছর যাবত বাঙালী নদীর অব্যাহত ভাঙনে হুমকির মুখে পড়ে ঐতিহ্যবাহী চর গোদাগাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। ১৯৭৮ সালে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এরপর প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যয়ে ওই বিদ্যালয়ের দ্বিতল একটি ভবন নির্মাণ করা হয়।
আজ বৃহস্পতিবার বাঙালী নদীর ভাঙনে ওই দ্বিতল ভবনের অর্ধেক অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এছাড়াও হুমকির মুখে পড়েছে ওই বিদ্যালয়ের আশপাশের আরও প্রায় দেড় শতাধিক বাড়িঘর।
এ বিষয়ে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী অভিভাবক হোসনে আরা বেগম, দেলোয়ারা বেগম, সাইদুর রহমান, খলিলুর রহমান জানান, একদিকে করোনা ভাইরাসের কারণে শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় ব্যাঘাত ঘটছে। অন্যদিকে রাক্ষুসী বাঙালী নদীর ভাঙনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী এই প্রতিষ্ঠানটি। তারা বগুড়ার আঞ্চলিক ভাষায় আরও বলেন, হামাগিরে ছোল পোল এখন কুনটি পড়বি, আর কতদিনই বা স্কুল বন্ধ থাকবি।
এ বিষয়ে অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহফুজার রহমান জানান, ২০০২ সালে প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বিদ্যালয় ভবনটি গত ৫ বছর আগে নদী ভাঙনের কবলে পড়েছে। এ বছর নদী ভাঙন বৃদ্ধি পাওয়ায় ভবনটির অর্ধেক অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। আজকালের মধ্যে ভবনটির পুরো অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যেতে পারে।

শেয়ারকরুন: