রবিবার, ২০ Jun ২০২১, ০৫:৪৫ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
মহিলা ক্রিকেটদলের অধিনায়ককে গাবতলীতে ফুলেল শুভেচ্ছা আদমদীঘিতে বিলুপ্তীর পথে ঐতিহ্যবাহী বাঁশ শিল্প কাহালুতে ২য় গর্যায় ৩০ট গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে দূর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডে পদ পেলেন পত্নীতলার রুবাইত হাসান সান্তাহারে ইয়াবাসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার কাহালু পৌর মেয়রকে সচিবালয়ে প্রবেশের কার্ড করে নিয়ে দিলেন এম পি মোশারফ হোসেন কাহালুতে চোর সন্দেহে যুবককে বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন কাহালুতে ৫ জুয়াড়ী আটক ডাঃ জোবাইদা’র জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে গাবতলীতে ছাত্রদলের দোয়া মাহফিল ও খাবার বিতরণ গাবতলীর বাগবাড়ীতে মসজিদ নির্মাণ কাজের উদ্ধোধন করলেন ডাঃ পাভেল

হামাগিরে ছোল পোল এখন কুনটি বসে পড়বি- চরগোদাগাড়ী স্কুলের অর্ধেক এখন নদীগর্ভে

হামাগিরে ছোল পোল এখন কুনটি বসে পড়বি- চরগোদাগাড়ী স্কুলের অর্ধেক এখন নদীগর্ভে

বদিউদ-জ্জামান মুকুল, স্টাফ রিপোর্টার: বাঙালী নদীর অব্যাহত ভাঙনে ইতিমধ্যেই চরগোদাগাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অর্ধেক অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। দুই একদিনের মধ্যে পুরো স্কুল ভবনটি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ার আশংকা করছেন স্থানীয়রা। বিদ্যালয় ভবনটির অর্ধেক অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ায় ছেলেমেয়েদের ভবিষ্যত নিয়ে উদ্বীগ্ন হয়ে পড়েছে অভিভাবক মহল।
গত ৮/১০ বছর যাবত বাঙালী নদীর অব্যাহত ভাঙনে হুমকির মুখে পড়ে ঐতিহ্যবাহী চর গোদাগাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। ১৯৭৮ সালে এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এরপর প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যয়ে ওই বিদ্যালয়ের দ্বিতল একটি ভবন নির্মাণ করা হয়।
আজ বৃহস্পতিবার বাঙালী নদীর ভাঙনে ওই দ্বিতল ভবনের অর্ধেক অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এছাড়াও হুমকির মুখে পড়েছে ওই বিদ্যালয়ের আশপাশের আরও প্রায় দেড় শতাধিক বাড়িঘর।
এ বিষয়ে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী অভিভাবক হোসনে আরা বেগম, দেলোয়ারা বেগম, সাইদুর রহমান, খলিলুর রহমান জানান, একদিকে করোনা ভাইরাসের কারণে শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় ব্যাঘাত ঘটছে। অন্যদিকে রাক্ষুসী বাঙালী নদীর ভাঙনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী এই প্রতিষ্ঠানটি। তারা বগুড়ার আঞ্চলিক ভাষায় আরও বলেন, হামাগিরে ছোল পোল এখন কুনটি পড়বি, আর কতদিনই বা স্কুল বন্ধ থাকবি।
এ বিষয়ে অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহফুজার রহমান জানান, ২০০২ সালে প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বিদ্যালয় ভবনটি গত ৫ বছর আগে নদী ভাঙনের কবলে পড়েছে। এ বছর নদী ভাঙন বৃদ্ধি পাওয়ায় ভবনটির অর্ধেক অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। আজকালের মধ্যে ভবনটির পুরো অংশ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যেতে পারে।

শেয়ারকরুন: