সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৪১ পূর্বাহ্ন

নোটিশ
আমাদের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম.........
শিরোনাম >>>
গাবতলীতে যুবদল নেতা সোহাগ অসুস্থ্য ॥ টিএমএসএস হাসপাতালে ভর্তি সোহেল সভাপতি, মনিন্দ্র সম্পাদক গাবতলীর সুখানপুকুর ৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সম্মেলন বগুড়ায় ২৯৭ তম রোভার স্কাউট লিডার ওরিয়েন্টেশন কোর্স’২১ অনুষ্ঠিত গাবতলীর কাগইলে প্রতিন্ধীদের কল্যাণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত গাবতলীর দক্ষিনপাড়া লাংলু তরুণ সংঘ উন্নয়ন ক্লাব উদ্বোধন কাহালুর ডোমরগ্রাম কেন্দ্রীয় বড় জামে মসজিদের ছাদ ঢালাই কাজের উদ্বোধন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুলেল তোড়া দিয়ে শ্রদ্ধা জানালেন নব-গঠিত কেন্দ্রীয় কৃষকদলের নেতৃবৃন্দ ধ্বংসের শেষ ধাপে ঐতিহ্যবাহী তুষভান্ডার জমিদার বাড়ী বগুড়ায় দেড় কেজি গাজা ও চাপাতি সহ গ্রেফতারঃ ১ সোনাতলায় হাইস্কুল মাঠে ফুটবল টুর্ণামেন্ট উদ্বোধন কামালেরপাড়া একাদশের কাছে বিশুরপাড়া গ্রাম উন্নয়ন সংস্থা ২-১ গোলে পরাজিত

বদিউদ-জ্জামান মুকুল,ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ার সোনাতলার যমুনা নদী থেকে দৈনিক গড়ে প্রায় আড়াইশ থেকে ৩শ ট্রাক বালু যাচ্ছে বগুড়া শহরে। এতে করে হুমকির মুখে পড়েছে ৬টি গ্রামের প্রায় ১০ হাজার পরিবার। নষ্ট হচ্ছে গ্রামীণ সড়ক। দ্রুতগামী ট্রাকের হর্ণ আর শব্দে এলাকাবাসীর রাতে ঘুম হারাম হচ্ছে। অপরদিকে পুরো এলাকা ধুলোয় অন্ধকার হচ্ছে। পাশাপাশি সামাজিক পরিবেশ দুষিত হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার পাকুল্লা ইউনিয়নের চালালকান্দী এলাকা সংলগ্ন যমুনা নদী থেকে একটি স্বার্থন্বেষী মহল অবাধে শ্যালো মেশিন, এসকেবেটর (ভেকু) ও শ্রমিক লাগিয়ে রাক্ষুসী যমুনা নদী থেকে অবাধে বালু তোলায় হুমকির মুখে পড়েছে পাকুল্লা, চালালকান্দী, আচারেরপাড়া, বাবলাতলা, শাহবাজপুর ও হুয়াকুয়া গ্রাম।

প্রতিদিন শহর থেকে আসা প্রায় শতাধিক মিনি ট্রাক, ট্রাক যোগে দিনে রাতে ওই স্থান থেকে বালু বহন করে বগুড়া শহরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এতে করে রাক্ষুসী নদী গর্ভে ৬ গ্রামের প্রায় ১০ হাজার পরিবারের শতশত বাড়িঘর, গাছপালা ও ফসলী জমি হুমকির মুখে পড়েছে। এছাড়াও বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ সহ পাকুল্লা-চরপাড়া, চরপাড়া-সর্জনপাড়া ও সোনাতলা-বগুড়া সড়কে কার্পেটিং পিচ উঠে গিয়ে ছোট বড় অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।
স্থানীয় লোকজন আরও জানান, সোনাতলার পাকুল্লা ও চালালকান্দী যমুনা নদী এলাকা থেকে অবাধে বালু উত্তোলন করে বগুড়া শহরে নিয়ে যাওয়ায় হুমকির মুখে পড়েছে বিস্তৃর্ণ জনবসতি এলাকা। অপরদিকে নষ্ট হচ্ছে গ্রামীণ সড়ক।
এ বিষয়ে পাকুল্লা এলাকার শাহারুল ইসলাম মাষ্টার, বেল্লাল হোসেন মাষ্টার, আইয়ুব হোসেন, শামছুল আলম, এনামুল হক, জেসমিন আকতার, পারভীন বেগম জানান, প্রতিদিন সকাল থেকে সারা রাত ধরে বসতবাড়ি সংলগ্ন রাস্তা দিয়ে দ্রæত গতিতে এসব বালুর ট্রাক যাতায়াত ও হর্ণ বাজানোর কারণে এলাকাবাসীর রাতের ঘুম হারাম হচ্ছে। অন্যদিকে গ্রামীণ সড়কগুলো দেবে ও কার্পেটিং উঠে গিয়ে গর্তের সৃষ্টি হচ্ছে।
স্থানীয় লোকজন আরও জানান, প্রশাসনের নাকের ডগায় এক শ্রেণির মুনাফা লোভী বালু ব্যবসায়ী নদী থেকে প্রতিদিন আড়াইশ থেকে ৩শ ট্রাক বালু বিক্রি করে মোটা অংকের ফায়দা লুটলেও এ ব্যাপারে প্রশাসন ও পুলিশ দর্শকের ভুমিকা পালন করে যাচ্ছে।
এ বিষয়ে সোনাতলা থানার ওসি মোঃ রেজাউল করিম রেজার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এ বিষয়ে কেউ তাকে অবগত করেননি।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাদিয়া আফরিন জানান, প্রয়োজনে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বালু তোলা বন্ধ করা হবে। কারণ সংশ্লিষ্ট উপজেলায় এখনও বালু মহল ইজারা প্রদান করা হয়নি।

শেয়ারকরুন: